২১ শে আগষ্ট বাঙালী ইতিহাসে অন্ধকারাচ্ছন্ন একটি দিন : এইচ এম মেহেদী

২১ শে আগষ্ট বাঙালী ইতিহাসে অন্ধকারাচ্ছন্ন একটি দিন। এ দিনের বিভীষিকা বাঙালী জাতি কখোনো ভুলবে না। ২০০৪ সালের ২১ শে আগষ্টের ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই। এবং অভিযুক্ত সকলের দ্রুত বিচারের আওতায় এনে ফাসি কার্যকরের দাবী জানাই। নিউজ ঢাকা কে দেয়া একান্ত সাক্ষাতকারে এমনটাই বললেন ঢাকা জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি জনাব এইচ এম মেহেদী।

এইচ এম মেহেদী আরো বলেন,  ২০০৪ সালে ২১ শে আগস্ট আওয়ামী লীগের জনসভায় সবচাইতে ভয়াবহ ন্যাক্কার জনক গ্রেনেড হামলা করেছিল একদল দুর্বিত্ত এবং এতে অবশ্যই তখনকার বিএনপি জামাত সরকারের শীর্ষ স্হানীয় নেতাদের হাত ছিলো।

২৩ বঙ্গবন্ধু এ্যাভিনিউর সন্ত্রাস বিরোধী সমাবেশে ট্রাকের উপর অস্হায়ী মঞ্চে বক্তব্য দিতেছিলেন বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা। সন্ত্রাসী হামলার মূল টার্গেট ছিলেন শেখ হাসিনা। কিন্তু আল্লাহর অশেষ রহমতে তিনি বেঁচে যান।ভয়াবহ গ্রেনেড হামলায় ঐ দিন নিহিত হন আইভি রহমান সহ আওয়ামী লীগের ২৩জন নেতা কর্মী এবং অসংখ্য নেতাকর্মী আহত হয়েছিলেন। অনেকে এখনও পঙ্গুত্ববরণ করে অসহ্য যন্ত্রণা নিয়ে বেঁচে আছেন।

তিনি আরো বলেন, ২৩ বঙ্গবন্ধু এ্যাভিনিউ ঐ দিন তাজা রক্তে রঞ্জিত হয়েছিল। খুনীরা এখনও থেমে যায়নি ষড়যন্ত্র থেকে।ওরা সুযোগ পেলেই রক্তের নেশায় মেতে উঠবে।আর যেন বাঙালির জীবনে ৭৫,২০০৪ সালের ঘটনা না ঘটে।আমাদের কে সচেতন থাকতে হবে।পরাজিত শক্তি আর যেন অবৈধভাবে ক্ষমতায় আসতে না পারে সেই দিকে নজর রাখতে হবে।বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে, কোন অপশক্তির কাছে আমরা মাথানত করবো না। শোক হোক শক্তি, এই হোক মোদের ব্রত।২১ শে আগস্টের সকল শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্জলি।

 

আরো পড়ুন: বঙ্গবন্ধু কে যারা ভালোবাসে না তারা এই দেশকে ভালোবাসে না :

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

কেরানীগঞ্জে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চুরি; তিনদিনেও ঘটনাস্থলে যায় নি পুলিশ

ঢাকার কেরানীগঞ্জে ১০৮ নং পারজোয়ার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চুরির ঘটনা ঘটেছে। সোমবার ১০ জানুয়ারী দিবাগত …

error: Content is protected !!