অবৈধ পন্যবাহী জাহাজ আটকের পর মালিকদের সাথে শ্রমিকদের ওয়াটার ট্রান্সপোর্ট সেলের মাধ্যমে জাহাজ চলাচলে আট দফা সমঝোতা চুক্তি

রাকিব হোসেন: চট্রগ্রাম বন্দর ও বহিঃনোঙরে মাদার ভেসেলের পণ্য পরিবহনে দীর্ঘদিনের অনিয়ম রোধে ডিজি শিপিং কমডোর সৈয়দ আরিফুল ইসলামের সাথে কয়েক দফা আলোচনা জাহাজ মালিক, শ্রমিক, পন্য এজেন্ট, লোকাল এজেন্ট ও ডবিøউটিসির নেতৃবৃন্দেও সাথে।  মিটিংয়ের পর সিদ্ধান্ত মোতাবেক বরিশাল, ঢাকার দোহার, মুন্সিগঞ্জ, আশুগঞ্জ ও কর্নফুলি নদীতে বৈধ জাহাজ মালিক পক্ষ শতাধীক অবৈধ পন্যবাহী জাহাজ আটক করে। এরপরই সিরিয়াল বিহীন পন্যবাহী জাহাজ পরিচালনায় বেহাল দশা উত্তোরনে জাহাজ মালিক ও শ্রমিকদের যৌথ মিটিংয়ে ওয়াটার ট্রান্সপোর্ট সেলের নৌযান পরিচালনা আট দফা সমঝোতা চুক্তি হয়েছে।

এতে মালিক পক্ষের সংগঠন বাংলাদেশ কার্গো ভেসেল ওনার্স এসোসিয়েশন এবং শ্রমিক সংগঠনের মধ্যে বাংলাদেশ জাহাজী ফেডারেশন,  বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক লীগ, বাংলাদেশ নৌÑযান শ্রমিক ও কর্মচারী ইউনিয়ন ও ট্রলার, বাল্কহেড শ্রমিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। বুধবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশ কার্গো ভেসেল ওনার্স এসোসিয়েশননের ঢাকার নিজস্ব অফিসে দীর্ঘ আলোচনার পর সাংবাদিকদের এতথ্য নিশ্চিত করেন সংগঠনের সাধারন সম্পাদক মো. নুরুল হক ।

আলোচনায় জাহাজ মালিক ও শ্রমিক সংগঠন গুলোর মধ্যে জাহাজ পরিচালনায় শৃংখলা ফিরিয়ে আনতে আট দফা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। যার মধ্যে রয়েছে, সমস্ত নৌযান মালিক ও শ্রমিকগণ নৌ নীতিমালা অনুযায়ী চলাচল করবে। চট্টগ্রাম বহিঃনোঙ্গর মাদার ভেসেল হতে ওয়াটার ট্রান্সপোর্ট সেলের সিরিয়ালভুক্ত হয়ে পণ্য পরিবহন করবেন। কোন নৌযান মালিক ও শ্রমিক ওয়াটার ট্রান্সপোর্ট সেলের নীতিমালা বহির্ভুত সিরিয়াল ছাড়া নৌযান পরিচালনা করতে পারবেন না। কোন নৌযান মালিক ওয়াটার ট্রান্সপোর্ট সেলের নীতিমালা বহির্ভুত সিরিয়াল ছাড়া নৌযান পরিচালনা করিলে মালিক সংগঠন তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। কোন মাষ্টার/ড্রাইভার ওয়াটার ট্রান্সপোর্ট সেলের নীতিমালা বহির্ভুত সিরিয়াল বিহীন নৌযান চালালে শ্রমিক সংগঠন তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। মহামারি করোনাতে প্রত্যেক জাহাজের শ্রমিকদের স্বাস্থ্যবিধি রক্ষার্থে স্বাস্থ্য সুরক্ষার সেনিটাইজার, মাক্স প্রদান করা হবে। অর্থনৈতিকভাবে মালিক Ñ শ্রমিক একে অন্যের পরিপুরক। শ্রমিকদের বিভিন্ন দাবি দাওয়া পর্যায়ক্রমে আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা হবে।

মহামারি করোনার সময়ে স্বার্থান্বেষী মহলের সিরিয়াল বিহীন নৌযান চালানোর কারণে হাজার হাজার মালিক অর্থনৈতিকভাবে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে। হাজার হাজার শ্রমিক বেকার। বেতনÑভাতা না পেয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। এই সংকট নৌ সেক্টরের। এই সংকট মালিকÑশ্রমিকসহ সংশ্লিষ্ট সকলের। নৌ সেক্টরকে রক্ষা করতে সমস্ত জাহাজ নৌ নীতিমালায় ওয়াটার ট্রান্সপোর্ট সেলের সিরিয়ালভুক্ত করতে হবে। মহামারি করোনার যুদ্ধ এবং স্বার্থান্বেষী মহলের ওয়াটার ট্রান্সপোর্ট সেলের নীতিমালা বহির্ভুত নৌযান চালানো বন্ধ করতে একযোগে মালিক, শ্রমিক নৌ শিল্প রক্ষার স্বার্থেসর্বসম্মত সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। জাহাজ মালিকপক্ষের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ কার্গো ভেসেল ওনার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি জনাব মোঃ ইকবাল হোসেন চেয়ারম্যান, সাধারণ সম্পাদক জনাব মোঃ নুরুল হক ও সাংগঠনিক সম্পাদক জনাব জি.এম.ছারোয়ার।

উল্লেখ্য চট্রগ্রাম বন্দর ও বহিঃনোঙরে মাদার ভেসেল হতে পণ্য পরিবহন করতে না পারায় এক হাজার বৈধ জাহাজের প্রায় ২০ হাজার শ্রমিক বেকার হয়ে পরেছিল। তারা বেতন পাচ্ছেনা গত তিন মাস ধরে। এনিয়ে জাহাজ শ্রমিকদের মাঝে চরম অসন্তোষ বিরাজ করছিল।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

টাঙ্গাইলে বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের তৃতীয় শ্রেনী কর্মচারী পরিষদের সম্মেলন

  নাসির উদ্দিন, টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধিঃবাংলাদেশ বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তৃতীয় শ্রেণীর কর্মচারী পরিষদ টাঙ্গাইল জেলা …

error: Content is protected !!