অর্থনৈতিক ক্ষয়-ক্ষতি

ভাড়া কমানোর দাবীতে কেরানীগঞ্জ গার্মেন্টস ব্যবসায়ীদের মানববন্ধন

করোনাভাইরাসের কারনে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় অর্থনৈতিক ক্ষয়-ক্ষতি হওয়ায় দোকান মালিকদের কাছে এপ্রিল,মে,জুন মাসের ভাড়া মওকুফ এবং জুলাই থেকে ডিসেম্বর ২০২০ পর্যন্ত ভাড়া অর্ধেক নেয়ার অনুরোধ জানিয়ে মানববন্ধন করেছে কেরানীগঞ্জ গার্মেন্টস পল্লীর কয়েক হাজার ব্যবসায়ী। তবে তাদের এ দাবী অযৌক্তিক বলে মন্তব্য করেছে কেরানীগঞ্জ দোকান মালিক ও গার্মেন্টস ব্যবসায়ী মালিক সমিতির সভাপতি স্বাধীন শেখ।

সোমবার ১৩ জুন সকাল ১০ টায় কেরানীগঞ্জ গার্মেন্টস পল্লীর প্রতিটি মার্কেটের সামনে দাড়িয়ে  সামাজিক দুরুত্ব মেনে এ মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। কালিগঞ্জ গার্মেন্টসপল্লীর সকল ব্যবসায়ীরা তাদের ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে মানববন্ধনে অংশগ্রহন করেন। এ সময় ব্যবসায়ীরা তাদের দাবী দাওয়া ও বিভিন্ন সমস্যা তুলে ধরেন।

আলম টাওয়ার মার্কেটে রায়হান কর্পোরেশনের সত্তাধিকারী হুমায়ন কবির বলেন, করোনার কারনে আমাদের যে ক্ষতি হয়েছে তা পুশিয়ে নেয়ার মতো না। তারপরেও আমাদের ভাড়া যদি কমানো হয় তা হলে কিছুটা স্বস্থি পাবো। এ ব্যাপারে প্রতিটি মার্কেটের ব্যবসায়ীরা মালিক সমিতি বরাবর মাস খানেক আগে লিখিত আবেদন জানিয়েছি। এখন পর্যন্ত তারা আমাদের কোন উত্তর দেয় নি।

মমতা এন্টারপ্রাইজের স্বত্তাধিকারী মো: জামাল বলেন, আমাদের এখানে ব্যবসায়ীরা করোনার কারনে মূলধন হারিয়ে ফেলেছি। ঈদের আগে আমাদের যে ব্যবসা হওয়ার কথা দোকান বন্ধ থাকায় আমরা কিছুই করতে পারি নি। এটা আমাদের ন্যায্য দাবী তিনমাস দোকান বন্ধ ছিলো এই তিন মাসের ভাড়া মওকুফ করে দেয়া হোক।

হাসান এন্টারপ্রাইজের মালিক ইঞ্জি: মো: কামরুল হাসান খোকন বলেন, করোনাভাইরাসের কারনে সারা দেশের ন্যায় কেরানীগঞ্জ গার্মেন্টস পল্লীর অর্থনৈতিক চাকা থেমে গেছে। কেরানীগঞ্জের গার্মেন্টস পল্লীর অর্থনৈতিক চাকাকে আবার সচল করতে হলে, ব্যবসায়ীদের বাচিয়ে রাখতে হলে ব্যবসায়ীদের সুযোগ দিতে হবে। আমাদের দাবী মানতে হবে। আমরা অযৌক্তিক কিছু বলছি না। অন্তত আমাদের ৩ মাসের ভাড়া মওকুফ করা হোক , এখন আমরা সীমিত আকারে দোকান খুলছি, তাই আমাদের ভাড়া অর্ধেক করে দেয়া হোক। এ ব্যাপারে আমরা মালিক সমিতিকে জানিয়েছি কিন্তু তারা কোন পদক্ষেপ ই নেয় নি। আমরা আবার ও আবেদন করছি এবার আমাদের আবেদন না মানলে আমরা সামনে আরো কঠোর কর্মসূচি দিবো।

এদিকে একমাস আগে দোকান ভাড়া বিষয়ে মালিক সমিতির কাছে লিখিত আবেদন করে ব্যবসায়ীরা । মালিক সমিতি তাদের এ আবেদন গুরুত্ব না দেয়ায় ক্ষুদ্ধ ব্যবসায়ীরা। একাধিক ব্যবসায়ী বলেন, করোনার কারনে আমরা সবাই ক্ষতিগ্রস্থ, দোকান মালিক সমিতি আমাদের প্রতিনিধি তারা আমাদের ব্যাপারটি গুরুত্ব সহকারে দেখার কথা। ভাড়া কমুক বা না কমুক তারা তো আমাদের দাবী দাওয়া নিয়ে মার্কেট ও দোকান জমিদারদের সাথে আলোচনা করবে। কিন্তু তারা কিছুই করে নি। আমরা প্রতিমাসে সমিতিতে চাদা দেই কিন্তু সমিতি আমাদের কোন সমস্যাই দেখে না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েক ব্যবসায়ী জানান, সমিতির সভাপতি স্বাধীন শেখের একাধিক মার্কেট রয়েছে। ভাড়া কমলে তার গায়ে বর্তাবে তাই সে নিশ্চুপ। সে চায় না ভাড়া কমুক।

কেরানীগঞ্জ গার্মেন্টস ব্যবসায়ী মালিক সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, তোফাজ্জল হোসেন মানববন্ধনে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদেরকে সান্ত্বনা দিয়ে বলেন, বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু এমপি এবং কেরানীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন আহমেদের সাথে আলাপ আলোচনার মাধ্যমে আপনাদের সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করবো

গার্মেন্টস ব্যবসায়ী মালিক সমিতির সাধারন সম্পাদক মুসলিম ঢালী বলেন, আমরা ব্যবসায়ীদের পক্ষে আছি। দোকান মালিকদের সাথে থেকে যেভাবে সুন্দর হয় সেই ব্যবস্থা করার চেষ্টা করবো।

তবে ভিন্নমত পোষন করেছেন কেরানীগঞ্জ গা: ব্যাবসায়ী সমিতির সভাপতি।  কেরানীগঞ্জ গার্মেন্টস ব্যবসায়ী মালিক সমিতির সভাপতি স্বাধীন শেখের সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন, ব্যবসায়ীরা যা দাবী করেছেন সব অমানবিক। তিনমাসের ভাড়া মাফ, ৬ মাসের ভাড়া হাফ এতো দাবী তো চলে না। আর সরকারও ভাড়া কমানোর ব্যাপরে কোন ঘোষনা দেয় নি। আমি জমিদারদের সাথে কথা বলেছি তারা ভাড়া কমাবে না। আমি ব্যবসায়ীদের বলেছি সবাই যার যার দোকান জমিদারের সাথে কথা বলে ভাড়া কমান।#

নিউজ ঢাকা

আরো পড়ুন,সারা বছর পানি জমে থাকে রাস্তায় ; ভোগান্তিতে দুই ইউনিয়নের জনগন

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

কেরানীগঞ্জে করোনা হাসপাতালের সামনে পশুর হাট !

ঢাকার কেরানীগঞ্জে জিনজিরা ইউনিয়নে জিনজিরা ২০ শয্যা হাসপাতালে চলছে করোনা রোগীদের চিকিৎসা। এখন এই হাসপাতালের …