করোনার কারনে

আমাদের সচেতনতাই হতে পাড়ে পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশ

তাসনীমুল হাসান মুবিন: করোনার কারনে আমরা আগের থেকে অনেক বেশি সচেতন। আমরা এখন মাস্ক পড়ি,খাওয়ার আগে সাবান দিয়ে ২০ সেকেন্ড ধরে হাত পরিষ্কারক করি,এমনকি প্রতি ঘন্টায়ও… বাথরুম থেকে এসেও হাত ধোয়ার কথা আর বলতে হয় না। সচরাচর নাকে,মুখে,চোখেও হাত দেইনা। হ্যান্ড স্যানিটাইজার পকেটে/ব্যাগে রাখি। হাটা চলায়,কথা বলায় নিরাপদ দুরত্ব বজায় রাখি।

আমরা অনেকটা সভ্য হয়ে গেছি,হোক সেটা চাপে বা তাপে।

ছবির প্লাস্টিকের বোতল,পলি,ময়লা গুলো নিশ্চই মেয়র বা কাউন্সিলর ফেলেন নি। এগুলো তো ওখানে থাকার কথাও না!
কে বা কারা ফেলল? হ্যাঁ,আমরাইতো,আমি আপনি আমরা…
প্লাস্টিকের বোতল,পলি ফেলব আমরা আর জলাবদ্ধতা হলে চৌদ্দগোষ্ঠী উদ্ধার করব জনপ্রতিনিধিদের….
হ্যাঁ,বলবেন জনপ্রতিনিধিদের দায়িত্ব আছে,আমাদের কি কোন দায়িত্ব নেই,কোন করনীয় নেই?

আসুন,আমরা সবাই সচেতন হই।
সুনির্দিষ্ট জায়গায় ময়লা ফেলি।

আমরা চাইলেই পারি নিজেদেরকে পরিবর্তন করতে।

নিউজ ঢাকা

আরো পড়ুন,এক হাজার ছাড়ালো কেরানীগঞ্জে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

ঈদে পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের পাশে এসিল্যান্ডের সারথি ফাউন্ডেশন

যারা আমাদের বাড়ি ঘরের ময়লা আবর্জনা সংগ্রহ করে নির্দিষ্ট স্থানে নিয়ে ফেলে, সেই পরিচ্ছন্ন কর্মীরা …