শুধু অন্ধকার

চারদিকে শুধুই অন্ধকার!

শেখ সফিউদ্দিন জিন্নাহ্: চারিদিকে যেন আজ শুধুই অন্ধকার। আলোর দেখা নেই বললেই চলে। যেদিকেই চোখ যায় সেদিকেই শুধু অন্ধকার আর অন্ধকার। আর এ অন্ধকার কোনো আলোক বাতির খেলার অন্ধকার নয়। এই অন্ধকার হলো মরণব্যাধি করোনা ভাইরাসের অন্ধকার। যে অন্ধকারে আজ পুরো পৃথিবী আচ্ছাদিত হয়ে আছে।

কবে কিভাবে অন্ধকার থেকে মুক্তি পাবে পৃথিবী নামক গ্রহটি। তা একমাত্র মহান রাব্বুল আলামিন জানেন। আজ প্রায় ১৮০ দিন যাবত পৃথিবীর আকাশ করোনা নামক অন্ধকারে আচ্ছাদিত হয়ে আছে। বিশ্বের শক্তিধর দেশগুলো আজ করোণায় কুপোকাত। এই মরণব্যাধি করোণার ছোবল থেকে প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশও রেহাই পায়নি। বাংলাদেশের ৬৪ জেলায় এখন করোণা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। এমন কঠিন সময়ে আমরা দাঁড়িয়ে আছি। পরিচিত প্রিয় অনেক মুখ আজ এই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

এই যখন অবস্থা ঠিক তখন জানতে পারলাম আমার প্রিয় অভিভাবক দেশের সর্বাধিক প্রচারিত দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকার সম্পাদক নঈম নিজাম ভাই করোনা ভাইরাস পজেটিভ। এছাড়াও বহু সংবাদকর্মী, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য, ডাক্তার, নার্সসহ প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাগণ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। যদিও অনেকেই সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন। মহান রাব্বুল আলামিনের অশেষ রহমতে প্রিয় সম্পাদক নঈম নিজাম ভাইও আজ সুস্থ হয়ে উঠেছেন। তবে কষ্টের বিষয় হলো যখন দিন যাচ্ছে আর করোনা রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলছে। এ সংখ্যার উর্ধগতি যেন কোনভাবেই নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হচ্ছে না। এই অবস্থার শেষ কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে তা কেবল আল্লাহপাকই ভালো জানেন।

গতকাল মঙ্গলবারদিন বিকেলে জানতে পারি আমার এক চাচাতো ভাইয়ের করোনা ভাইরাস পজিটিভ। আর তখন যেন মনটা আরো বেশী মাত্রায় খারাপ হয়ে গেলো। আমার এই চাচাতো ভাই অনেক সাবধানে তার সরকারি চাকরি করে আসছিল। এই করোনা কালে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন এলাকায় পেশাগত দায়িত্ব পালনে করোনা রোগীদের খোঁজখবর নেয়াসহ নানা কাজ করতে যেতে হয়েছে তাকে।

গতকাল যখন ফোনে কথা হয় আমার ওই চাচাতো ভাইয়ের সাথে তখন তিনি জানান, গত ৩১ মে নমুনা দিয়েছি আর ওই নমুনার ফলাফল ৯ জুন জানতে পারি আমার করোনা পজেটিভ। কিন্তু আমার কোন উপসর্গ নেই বললেই চলে। এই চাচাতো ভাই করোনা পজিটিভ হওয়ার পর আমার আত্মীয়স্বজনদের মধ্যে এক ধরনের আতংক দেখা দিয়েছে। এতে পড়েছি নতুন এক সমস্যায়।

এতোদিন যতোটা না ভয়ে ছিলাম বাইরে যেতে। আর এখন বাইরে না যাওয়ার ভয় যেন বেড়ে গেলো। কি হবে এই বিশ্বের। আল্লাহপাক কি বিশ্ববাসীকে মুক্তি দেবেন না। আল্লাহ পাকের নিকট আকুল আবেদন আমাদেরকে ক্ষমা করুন। মুক্তি দিন এই ভাইরাস থেকে। পৃথিবীতে অন্ধকার ছাপিয়ে আলোর রশ্মি ছড়িয়ে দিন। আমিন! লেখক: সিনিয়র সাংবাদিক।

নিউজ ঢাকা

আরো পড়ুন,প্রশাসনের দায়সারা ভাব, মেসভাড়া নিয়ে বিপাকে জবি শিক্ষার্থীরা

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু

নোয়াখালীতে মুজিব জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে এক মাসের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি

নোয়াখালী সোনাইমুড়ীতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে আতাউর রহমান ভূঁইয়া স্কুল এন্ড …