কেরানীগঞ্জে লকডাউনে প্রাণ ফিরে পেয়েছে চড়াইল খেলার মাঠ

করোনার কারনে সারা বিশ্বের সব কিছু থমকে গেছে। মানুষের স্বাভাবিক জীবন যাপন আগের মতো নেই। কেউ ঘর থেকে সহজে বের হতে পারছে না, কাজেও যেতে পারছে না। স্কুল কলেজ বন্ধ থাকায় শিশু কিশোররা স্বাভাবিক পড়া লেখা করতে পারছে না, মাঠে যেয়ে খেলাও করতে পারছে না তারা। তাই মাঠগুলো প্রায় ফাকা। মাঠের এই ফাকা  থাকার সুযোগে চড়াইল খেলার মাঠের চিত্র পাল্টে দিয়েছে কালিন্দী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ পরিবার। এ যেন লক ডাউনে প্রাণ ফিরে পেয়েছে চড়াইল খেলার মাঠ।

সরেজমিন কালিন্দী ইউনিয়নের চড়াইল খেলার মাঠে গিয়ে দেখা যায়, চারদিকে সবুজের সমাহার । অপূরূপ সবুজে ঘেরা চারপাশ। মাঠটির উন্নয়নে কাজ করছে কয়েকজন শ্রমিক। কেউ কেউ ঘাস কাটছে কেউ পানি ছিটাচ্ছে, কেউ আগাছা পরিষ্কার করছে। ২ মাস আগের মাঠের চিত্র আর এখনকার মাঠের চিত্র সম্পূর্ন বেতিক্রম।

দূর থেকে দারিয়ে শ্রমিকদের কাজের দৃশ্য দেখছিলো সাদমান নামের এক কিশোর। তার সাথে কথা হলে তিনি জানান, আগে ঘাস ছিলো না পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন ছিলও না মাঠটি। এখন মাঠতিতে খেললে আগের মতো ব্যাথা পাবো না, ঘাষে ভরা মাঠ দেখতেও খুব সুন্দর লাগছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মাঠের কাজের তত্বাবধায়নের দায়িত্বে থাকা সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মো: ইয়ামিন জানায়, গত ২৫ মার্চ থেকে লকডাউন থাকায় মাঠটি খালি পরে ছিলো। এরপর কালিন্দী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মো: নূর ইসলাম বাচ্চু নূর, আমি সহ স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার আরিফ, ঝুমুর হোসেন ঝুমু, মো: রাজা, মো: সিরাজ, রাসেল,শরীফ, রাজীবসহ স্থানীয় আওয়ামীলীগের বেশ কয়েকজন নেতারা মাঠটির বিষয়ে ভাবি এবং পরিচর্যার সিদ্ধান্ত নেই।  এর পরে আমরা মাঠটিতে ঘাস লাগাই এবং নিয়মিত পরিচর্যা করতে থাকি। ১ মাস পরে মাঠটির রূপ পরিবর্তন হয়। এখোনো কাজ চলমান রয়েছে।

মো: ইয়ামিন আরো জানায়, কেরানীগঞ্জেও  মাঠগুলো তেমন যত্ন করা হয় না। প্রতিটি এলাকার সচেতন ব্যাক্তিদের উচিত এলাকার মাঠগুলো পরিচর্যা করা এবং কিশোর ও যুবকদের খেলাধূলার প্রতি উৎসাহিত করা। তা হলেই সমাজ কে নেশার ভয়াল ছোবল থেকে রক্ষা করা যাবে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

কেরানীগঞ্জে আরোও ১১ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত ; মোট শনাক্ত ৪৯৭

কেরানীগঞ্জে  নতুন করে আরো ১১ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।  এ নিয়ে কেরানীগঞ্জে মোট করোনায় …

error: Content is protected !!