কেরানীগঞ্জে করোনাভাইরাস মানছে না মাদক ব্যবসায়ীরা ; জড়িয়ে পরেছে নারীরাও

করোনাভাইরাস মানছে না কেরানীগঞ্জের মাদক ব্যবসায়ীরা। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যখন করোনা মোকাবেলায় ব্যস্ত তখন মাদক ব্যবসায়ীরা জেগে উঠেছে। প্রকাশ্যে বিক্রি করছে ইয়াবা ট্যাবলেট। অনেক নারীও জড়িয়ে পরছে মাদক ব্যবসায়।

কেরানীগঞ্জের ইকুরিয়ায় সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, কিছুদিন পূর্বে দক্ষিন কেরানীগঞ্জের ইকুরিয়া পূর্বপাড়া এলাকার এক নারী ব্যবসায়ীকে ৫ হাজার ইয়াবা ট্যাবলেটসহ গ্রেপ্তার করে র‌্যার। তাকে ভ্রম্যমান আদালতের মাধ্যমে ৬ মাসের সাজা প্রদান করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। জানা যায়, এই নারী জেল হাজতে থাকায় এলাকায় দাপটের সঙ্গে মাদক বিক্রি করে তার স্বজনরা। কিছু দিন আগে এই নারী জেল হাজাত থেকে বেড় হয়ে আবার শুরু করে মাদকের রমরমা ব্যবসা। তিনি ইকুরিয়াসহ শুভাঢ্যা ও তেঘরিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন স্পটে দেদারসে ইয়াবা বিক্রি করছে বলে স্থানীয়রা অভিযোগ করেছেন।

এলাকাবাসী আরো জানান, পুরুষের পাশাপাশি অনেক নারীরাও মাদক ব্যবসায় ঝুকছে। নারীদের আন্ডারগ্রাউন্ডে পুরুষরাই নারীদের শেল্টার দিচ্ছে। ইকুরিয়া পূর্ব পাড়া ইকুরিয়া মুসলিমনগর ইকুরিয়া খালপাড় এলাকার ২০-২৫ জন দেদারছে ইয়াবা বিক্রি করছে। ইকুরিয়া এলাকায় মাদক নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনা হয়েছে একাধিক বার। এসব মাদক ব্যবসায়ীরা সরকার দলীয় ক্ষমতা দেখায়। তারা যখন যে দল ক্ষমতায় আসে তখন সেই দলের নাম ভাঙ্গীয় বিভিন্ন অপরাধ করে।

বিভিন্ন সূত্রে থেকে জানা গেছে, কেরানীগঞ্জ উপজেলার ১২ টি ইউনিয়নে কয়েক শত মাদকের স্পট রয়েছে। মাদকের ভ্রাম্যমান স্পটের সংখ্যাই বেশী। পুরুষ ও নারী যৌথ ভাবে মাদক ব্যবসা করছে কেরানীগঞ্জে।

শুভাঢ্যা ইউয়িনের চরমীরের বাগ, ,ইকুরিয়া বেপারী পাড়া,ইকুরিয়া বাজার, চুনকুটিয়া টিলাবাড়ি, শুভঢ্যা পশ্চিমপাড়া, জিয়ানগরে মাদকের একাধিক স্পট রয়েছে।

তেঘরিয়া ইউানয়নের আবদুল্লাহপুর, রাজেন্দ্রপুর, করের গাঁও, গৈস্তাবাজার,

বাস্তা ইউনিয়নের দড়িগাঁও, ভাওয়ার বেটি, বেরীবাধ, রাজাবাড়ি, গোয়ালখালী বাজার, মাদকের একাধিক স্পট রয়েছে।

রোহিতপুর ইউনিয়নের ধর্মশুর, সোনাকান্দা, রোহিতপুর বাজার,

শাক্তা ইউনিয়নের আটি বাজার, মধ্যেরচর, খোলামোড়া, জিয়ানগর, নুড়ন্ডি মোড়,

তারানগর ইউনিয়নের বটতলী বাজার, ঘাটারচর মোড়, বেউতা মাদকের একাধিক স্পট রয়েছে।

কলাতিয়া ইউনিয়নের বাজার রোড, খাড়াকান্দি, হোগলাগাথিতে মাদকের একাধিক স্পট রয়েছে।

হযরতপুর ইউনিয়নের হযরতপুর বাজার, পশুর হাট, ইটাঁভাড়াতে মাদকের একাধিক স্পট রয়েছে।

কালিন্দী ইউনিয়নের মুসলিমবাগ, চড়াইল খালপাড়, বাকা চড়াইল, বরিশুর বাজার মাদকের একাধিক স্পট রয়েছে।

জিনজিরা ইউনিয়নে গোলামবাজার, বন্দ ডাকপাড়া, মনুবেপারী ঢাল, মান্দাইলবাজার, বারঘর টোলা,হুক্কাপট্রিতে মাদকের একাধিক স্পট রয়েছে।

আগানগর ইউনিয়নের বুড়িগঙ্গা ২য় সেতুর নীচে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ মিটফোর্ড হাসপাতালের ষ্টাফ কোয়াটার,আমবাগিচা খালের পাড়, ইস্পাহানী,এবং পূর্ব আগানগরসহ শতাধীক স্পট রয়েছে।

সবচেয়ে বড় বিষয় রয়েছে খোদ কেরানীগঞ্জ মডেল থানার আশপাশে রয়েছে ইয়াবা টেবলেটের জমজমাট ব্যবসায়। যা ইতি পূর্বে পুলিশের বিভিন্ন দপ্তরকেও বলার পরও কোন কাজ হয় নি। যার কারনে থানা এলাকার অনেক লোকই বলে বেড়ায় এদের সাথে পুলিশই জড়িত রয়েছে। তা না হলে পুলিশ এদের বিরুদ্ধে জানার পরও কেন তাদের গ্রেপ্তার করছে না?

হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার কথা সকলের অথচ মাদক ব্যবসায়ীরা ফুরফুরা মেজাজে ইয়াবা বিক্রি ও সেবন করছে।

দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানার ওসি মোহাম্মদ শাহজামান বলেন, মাদকের সঙ্গে কোন আপোষ নেই। তার থানায় মাদকের মামলা বেশী। কেরানীগঞ্জে আগের তুলনায় অনেক মাদক ব্যবসা কমেছে। করোনার মধ্যে ফোনে অনেক অভিযোগ পেয়েছি। করোনা মোকাবেলার পাশাপাশি মাদকের অভিযানো আমাদেও চলছে। তবে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে চলে আসলে পুরোপুরি অভিযান চালিয়ে ধ্বংস করে দিবো এ মাদক ব্যবসায়ীদের। আমার থানার পুলিশ বাদী হয়ে মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে একাধীক মামলা করেছেন। #

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

কেরানীগঞ্জে যুবককে আটকে রেখে মারধরের অভিযোগ

ঢাকার কেরানীগঞ্জে  এক যুবককে আটকিয়ে রেখে মারধরের অভিযোগ উঠেছে ।  এ ঘটনায় অভিযোগকারী মোহাম্মদ আমান …

error: Content is protected !!