স্ত্রী কতৃক হত্যা

কেরানীগঞ্জে নিজ ঘরে গৃহকর্তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার ; স্বজনদের দাবী স্ত্রী কতৃক হত্যা

ঢাকার কেরানীগঞ্জে মো: মজিবুর রহমান  (৫২) নামে এক গৃহকর্তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা পুলিশ । ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার ৩ মে তেঘরিয়া ইউনিয়নের সিএনজি স্ট্যান্ড এলাকায় কদম আলী সাহেবের বাড়িতে।

দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানার এস আই আবুল কালাম আজাদ জানান, আজ সকালে মজিবর রহমানের পরিবারের লোকজন দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানায় তার মৃত্যুর খবর দিলে আমরা ঘটনা স্থলে গিয়ে সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় তার মরাদেহ উদ্ধার করি। তার পিতার নাম : মৃত: কদম আলী। পেশায় একজন গাড়ির ড্রাইভার ছিল সে। মজিবর রহমান তেঘরিয়া ইউনিয়নের পৈত্রিক বাড়িতে ৪ তলায় স্ত্রী ও দুই মেয়েসহ (৮,১১) বসবাস করতেন। তার পরিবারের লোকজনের সাথে কথা বলে জানতে পারি তিনি দীর্ঘদিন ধরে কিডনী রোগে আক্রান্ত ছিলো। পরে লাশটি উদ্ধার করে সুরতহাল রিপোর্ট শেষে ময়না তদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করি। রিপোর্ট হাতে পেয়ে বলতে পারবে কিভাবে মারা গেল সে। এ ঘটনায় দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানায় একটি অপমৃত্যু দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

এদিকে মজিবর রহমানের মৃত্যুর ঘটনাকে হত্যা বলে দাবী করছে তার স্বজনেরা। নিহতের ভাই মো: মাহবুব বলেন, গতকাল রাতে আমার ভাইর মৃত্যুর ঘটনায় ভাবী শারমিন আক্তার আমাদের না জানিয়ে বাহিরের এক লোককে জানায় যে ভাই ফাসি দিয়েছে, পরে সে এসে আমাদের বলে যে আমাদের ভাই মারা গেছে। ভাবী আমাদের বাড়ির কাউকে কেন জানালো না? কয়েকদিন আগে আমার মায়ের গায়েও হাত দিয়েছিলো ভাবী, এছাড়া সে কৌশলে কিছুদিন আগে ভাইয়ের কাছ থেকে জায়গা সম্পদ সব লিখে নেয়। কিন্তু আমার ভাই কিডনী রোগী হওয়া স্বত্তেও কোন চিকিৎসা সে এতোদিন করায় নি। ভাইর সাথে খারাপ ব্যবহার করতো সে। আমার মা পুলিশের কাছে অভিযোগ করেছে যে ভাবীই আামার ভাইকে হত্যা করেছে। বাকিটা পুলিশের রিপোর্ট আসলে বলতে পারবো।#

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

শিবগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় হোটেল ব্যবসায়ী শ্যামল নিহত

শিবগঞ্জ (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ বগুড়ার শিবগঞ্জ পৌর এলাকার বানাইল কলেজপাড়া গ্রামের হোটেল ব্যবসায়ী শ্যামল চন্দ্র দাস …

error: Content is protected !!