১০ হাজার টাকা না দেয়ায় মোটরসাইকেলটি দিলো না পুলিশ

পাঁচমাস আগে চুরি হওয়া মোটর সাইকেল ফিরে পেতে থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছিলেন ভুক্তভোগী আরিফ উদ্দিন। কিন্তু জিডি করার পাঁচ মাস পরও পুলিশ সেই মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করতে পারেনি।

তবে ভুক্তভোগী আরিফ উদ্দিন পুলিশের আশায় বসে না থেকে সম্ভাব্য সব স্থানে খোঁজ নিতে থাকেন। খুঁজতে খুঁজতে আরিফ যখন ক্লান্ত তখনই সে মোটরসাইকেলটি দিনের আলোতে ঠিক দুপুর বেলায় স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়ির ১০০ গজ কাছের একটি সড়ক থেকে উদ্ধার হয়। এরপর নিজের চুরি হওয়া মোটরসাইকেল নিজেই উদ্ধার করে চোরসহ গাড়িটি নিয়ে গেলেন পুলিশ ফাঁড়িতে। কিন্তু পুলিশ ফাঁড়ির ক্যাম্প ইনচার্জকে ১০ হাজার টাকা না দিলে সে গাড়িটি পাবে না বলে জানিয়ে দেয় পুলিশ।

করোনার মহামারির মধ্যেও সম্প্রতি এমনই একটি ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটেছে নোয়াখালীর হাতিয়া থানার সাগরিয়া পুলিশ ফাঁড়িতে। সেখানকার সাধারণ মানুষ এ ঘটনায় নির্বাক। তারা বলছেন, করোনার কারণে সৃষ্ট অভাবের মধ্যে সারাদেশে পুলিশ যখন মানুষের ঘরে ঘরে খাবার নিয়ে যাচ্ছে। টাকা দিচ্ছে। তখন এ পুলিশরা টাকা ছাড়া সংসার চালানোর একমাত্র বাহনটি মোটরসাইকেলটি আরিফকে দিচ্ছে না। বিষয়টি এলাকায় পুলিশের নেতিবাচক ভূমিকা নিয়ে সমালোচনা সৃষ্টি হয়েছে।

জানা যায়, নোয়াখালীর হাতিয়ার বুড়িরচর ইউনিয়নের ৫ নাম্বার ওয়ার্ডের বাসিন্দা আরিফ উদ্দিন মোটরসাইকেলটি কিনে ভাড়ায় যাত্রী নিতেন। এতে প্রতিদিন তার ৩০০-৫০০ টাকা আয় হতো। যে টাকা দিয়ে চলতো তার সংসার। কিন্তু ৫ মাস আগে অর্থাৎ গত ৪ ডিসেম্বর তার মোটরসাইকেলটি চুরি হয়ে যায়। এরপর থেকে উপার্জনের একমাত্র সম্বলটি হারিয়ে আরিফ অনেকটা মানবেতর জীবনযাপন করতে থাকে। তাই সে হন্য হয়ে খুঁজতে শুরু করেন মোটরসাইকেলটি। একপর্যায়ে গত ২৭ এপ্রিল সে মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করতে পারে।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগী আরিফ উদ্দিন বলেন, ‘দুপুরবেলা সাগরিয়া বাজারে রাস্তার ওপর দেখি আমার মোটরসাইকেলটি নিয়ে অন্য একজন চালক যাত্রী ডেকে ভাড়া নিচ্ছে। আমার গাড়ি চিনতে পেরে আশেপাশের লোকজনের সাহায্য নিয়ে গাড়িটি উদ্ধার পাশের সাগরিয়া পুলিশ ফাঁড়িতে নিয়ে যাই। সেখানে নেওয়ার পর আইসি (ক্যাম্প ইনচার্জ) স্যার দুলাল চন্দ্র ভৌমিক গাড়ি দেবে কি দেবে না কিছুই বলছে না। এ রকম করতে করতে সন্ধ্যা হয়ে গেছে। পরে আমি অনেক্ষষণ অপেক্ষা করেছি। উনার কাছে জানতে চাইলে তিনি তখন বলে থানায় গিয়ে ওসি স্যারকে বলার জন্য। পরে আবার রাতে থানায় ওসি স্যারের কাছে গেছি। সেখান ওসি স্যার বলল, মামলা করতে। কিন্তু আমি শুনছি মামলা করলে গাড়ি পেতে আরও ৫-৬ মাস লেগে যাবে। ততদিন আমি সংসার চালাবো কী দিয়ে? এভেবে মামলা করতে রাজি হইনি। পরে ওসি স্যার বলল, তাহলে কালকে (২৮ এপ্রিল) ফাঁড়ি থেকে গাড়ি নিয়ে যেতে।’

আরিফ বলেন, ‘পরে আমি সকালে গাড়ির জন্য গেলে আমাকে বলা হয় গাড়ি নিতে হলে ১০ হাজার টাকা লাগবে। কিন্তু এসময় আমি ১০ হাজার টাকা কই পাব? তাই অনেক কষ্টে ১৫’শ টাকা জোগাড় করে আবারও যাই। কিন্তু আইসি স্যার কোনোভাবেই রাজি হননি। পরে আবারও থানায় গিয়ে ওসি স্যারকে বলি। তখন ওসি স্যার আমার সামনে আইসি স্যারকে ফোন করে বলেছিল, ‘চাপ দিয়ে কোনো টাকা নেওয়ার দরকার নেই। খুশি মনে যা দেয় তাই নিও।’

এরপর আমাকে ফাঁড়িতে গিয়ে গাড়ি নিতে বলেন ওসি স্যার। পরে ওইড়িন রাত হওয়ার পরের দিন (২৯ এপ্রিল) সকালে আমি আবার গাড়ির জন্য গেলে ১৫’শ টাকা দিতে চাইলে ১০ হাজার টাকা ছাড়া মোটরসাইকেলটি দেবেন না বলে জানান।

আরিফ উদ্দিন দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, ‘আমার গাড়িটা এতদিন চুরি করে অন্যজন ভাড়া চালিয়ে টাকা ইনকাম করেছে। কিন্তু সে চোর থেকে আমাকে ক্ষতিপূরণ তো আদায় করে দেয়নি উল্টো আমার থেকেই টাকা চাইছে। তাইলে আমি যাব কার কাছে?’

এ বিষয়ে জানতে সাগরিয়া পুলিশ ফাঁড়ির ক্যাম্প ইনচার্জ দুলাল চন্দ্র ভৌমিককে কল করা হলে তিনি কল রিসিভ করেননি। উল্টো ভুক্তভোগী আরিফের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেছে সাংবাদিককে বিষয়টি জানানোর কারণে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে হাতিয়া জোনের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) গোলাম ফারুক  বলেন, ‘পরশু দিনই আমি খবর পেয়েছি যে টাকা ছাড়া গাড়ি দিচ্ছে না। আমি তখনই ওসি-আইসিদেরকে বলেছি টাকা চাওয়ার দরকার নেই। ওরা খুশি ইচ্ছায় যদি কিছু দেবে।’

খুশি ইচ্ছায় পুলিশকে কেন টাকা দিতে হবে? পুলিশের কোন ভূমিকার জন্য টাকা দিতে হবে, এমন প্রশ্নে এএসপি গোলাম ফারুক বলেন, ‘অনেকসময় ভুক্তভোগীরা উপকার পেয়ে খুশি ইচ্ছায় টাকা দিয়ে থাকে। সে জন্য বললাম।’

পরে বিষয়টি উল্লেখ করে বাংলাদেশ পুলিশের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি-মিডিয়া) সোহেল রানাকে জানালে তিনি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে আশ্বাস দেন। এ বিষয়ে  বলেন, ‘টাকা নেওয়ার প্রশ্নই আসে না। বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হচ্ছে।

সুত্র: সারা বাংলা।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

নরসিংদীতে বেপরোয়া গতি কেড়ে নিল তাজা একটি প্রাণ

হৃদয় এস সরকার,নরসিংদী: রমজানের দ্বিতীয় দিন রাতে তারাবি নামাজ শেষে ঘুরতে যাওয়ার জন্য আরিফুল ইসলাম …

error: Content is protected !!