Home / সারাদেশ / নরসিংদীতে সম্পত্তির জন্যে ব্যবসায়ীকে পেটালো এএসপি
ব্যবসায়ীকে

নরসিংদীতে সম্পত্তির জন্যে ব্যবসায়ীকে পেটালো এএসপি

নরসিংদীর পলাশ উপজেলায় সম্পত্তি বেচা-কেনাকে কেন্দ্র করে মোরশেদ আহম্মেদ (৪০) নামে এক কাপড় ব্যবসায়ীকে তার নিজ দোকান থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ উঠেছে ঢাকা মোহাম্মদপুর জোনের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) জ্যোতির্ময় সাহা (অপু)-র বিরুদ্ধে।

শনিবার (১৪ মার্চ) দুপুরে নরসিংদীর পলাশ উপজেলার ঘোড়াশাল পৌর এলাকায় এএসপির নিজ বাড়িতে এই মারধরের ঘটনাটি ঘটে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভুক্তভোগী মোরশেদ জানায়, “শনিবার দুপুরে দোকানে কাজ করছিলাম এমন সময় কিছু লোক এএসপি জ্যোতির্ময় সাহার কথা বলে আমাকে ওনার বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে যাবার সাথে সাথেই এএসপি জ্যোতির্ময় সাহা আমাকে নোংরা ভাষায় মা-বাবার নাম তুলে গালাগালি শুরু করেন।

এক পর্যায়ে ওনি আমার গালে থাপ্পড় মারলে, সাথে সাথে ওনার ইশারায় রুমে থাকা ওনার লোক জাকির ও শাহিন নামে দুজন আমাকে কাঠের লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়ি পিটানো শুরু করে। আমাকে পিটানোর সময় এএসপি জ্যোতির্ময় সাহা বলতে থাকেন, “তোর এতো বড় সাহস? আমি যে সম্পত্তি কিনার জন্য ঘুরতেছি, তুই সে সম্পত্তি বায়না করার সাহস পাইলি কই?, তোর এতো টাকা আসলো কোথা থেকে?, কোথায় পেলি সেই সাহস? এই বলে আমাকে বেধড়ক এলোপাতাড়ি পিটানো শুরু করা হয়। আমি যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে একপর্যায়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেলি। এরপর জ্ঞান ফিরলে দেখি আমি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছি”। ব্যবসায়ী মোরশেদ আহম্মেদ আরো জানায়, নরসিংদী পলাশ উপজেলার সাবেক ইসলাম চেয়ারম্যানের স্ত্রী মরিয়ম বেগমের কাছ থেকে গত ১৫ দিন আগে পলাশ বাজার এলাকায় সাড়ে ৬ শতাংশ সম্পত্তি ৪২ লাখ টাকায় বিনিময়ে কিনার জন্যে তাদের মাঝে কথা ঠিক হয়। দুই ধাপে সম্পত্তি ক্রয়ের জন্যে ২০ লাখ টাকা দেয় মোরশেদ।

মরিয়ম বেগমের সাথে কথা অনুযায়ী আগামী এক মাসের ভেতরে পুরো টাকা পরিশোধের পর ঐ সম্পত্তি মোরশেদর নামে দলিল করার কথা। কিন্তু এই সম্পত্তির উপর আগে থেকেই এএসপি জ্যোতির্ময় সাহার নজর ছিলো এবং এই সম্পত্তি কিনতে চান এএসপি এমন কোনো কথা আগে থেকে কখনোও স্থানীয় বা প্রতিবেশিদের কাছে বলেননি এএসপি বলে জানায় মোরশেদ। মোরশেদের মামা মোহাম্মদ টিটু মোল্লা জানিয়েছে, মোরশেদকে জ্যোতির্ময় সাহার বাড়িতে আটকে রেখে মারধর করা হচ্ছে এমন সংবাদ পেয়ে স্থানীয়দের সহযোগিতায় তাকে অজ্ঞান অবস্থায় এএসপি বাড়ি থেকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ নিয়ে আসি। এই বিষয়টি থানা পুলিশকে জানানো হয়েছে। এবং আমরা সঠিক আইনগত ব্যবস্থা জন্যে নরসিংদীর পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদারকে এই বিষয়ে অবগত করেছি।

এ বিষয়ে জানতে এএসপি জ্যোতির্ময় সাহা অপুর ব্যক্তিগত মুঠোফোনে ফোন কল করা হলে অপুর খালাত ভাই পরিচয় দিয়ে রনি নামের এক যুবক ফোন রিসিভ করে জানান, জ্যোতির্ময় সাহা ঘুমাচ্ছেন। ওনার সাথে কথা বলতে হলে ২ ঘন্টা পর কল দিন। এরপর একাধিক নাম্বার থেকে ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তিনি ফোন আর রিসিভ করেননি।

এ ব্যাপারে পলাশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মো. নাসির উদ্দিন জানায়, পলাশ বাজারের এক ব্যবসায়ীকে পিটানোর খবর পেয়ে হাসপাতালে পুলিশকে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নিউজ ঢাকা

আরো পড়ুন,নিজের টাকায় মাস্ক কিনে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিতরন করলেন এস আই

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

About হৃদয় এস সরকার, নরসিংদী প্রতিনিধিঃ

Check Also

দরিদ্রদের মাঝে বাল্যবন্ধু এসোসিয়েশনের খাদ্যসামগ্রী বিতরণ

দেশে চলমান করোনা সংকটে দুর্বিপাকে পড়েছেন দরিদ্র জনগণ। কাজ বন্ধ তো চুলাও বন্ধ। এমন অবস্থায় ...

বিত্তিডাঙ্গা বাজার বনিক সমবায় সমিতির উদ্যোগে জীবানু নাশক প্রয়োগ

শেখ রনজু আহাম্মেদ রাজবাড়ী প্রতিনিধি ঃ করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় ও এর থেকে এলাকাবাসীকে রক্ষা করতে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *