Breaking News
Home / প্রচ্ছদ / রাজবাড়ীতে জনপ্রতিনিধিকে মারপিট করেছে উপসহকারী প্রকৌশলী
উপসহকারী

রাজবাড়ীতে জনপ্রতিনিধিকে মারপিট করেছে উপসহকারী প্রকৌশলী

শেখ রনজু আহাম্মেদ রাজবাড়ী প্রতিনিধি ঃ রাজবাড়ী সদর উপজেলার চন্দনী ইউনিয়নের হড়াই নদী খননের নামে ব্যক্তি জমি থেকে মাটি কেটে নিয়ে বিক্রির অভিযোগ উঠেছে পানি উন্নয়ন বোর্ডের একজন উপসহকারী প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে।

অবৈধভাবে মাটি কাটায় বাধা দিতে গিয়ে মারপিটের শীকার হয়েছে চন্দনী ইউনিয়নের একজন মেম্বার। পানি উন্নয়ন বোর্ডের তথ্যমতে, ২ কোটি ৮ লক্ষ টাকা ব্যয়ে এডিবির অর্থায়নে গত বছরের জুন থেকে নভেম্বর পর্যন্ত হড়াই নদী খনন করা হয়।

এরমধ্যে ৭০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। চলতি বছরের মে মাস পর্যন্ত প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ানোর অনুমতি করেছে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এসএএসআই ও রুহুল আমিন জেভি।

রবিবার সকালে চন্দনী ইউনিয়নের হড়াই নদীর পাড় ( শ্বশান ) এলাকায় গিয়ে দেখাযায়, সেখানে শত শত মানুষ মাটি কাটা বন্ধের দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল করছে। তাদের একটাই স্লোগান জীবন গেলেও নদীর পাড় কাটতে দেওয়া হবে না।

এ সময় চন্দনী এলাকার বাসিন্দা নিভা রানী দাস বলেন, এর আগে হড়াই নদীর ভাঙ্গনে পরেছি তিনবার। সব হারিয়ে বাবার কাছ থেকে পাওয়া ৭ শতাংশ জমিতে একটি ছোট ঘর তুলে বসবাস করছি। ফের ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে তার ঘরের কোনে।

এখন যেভাবে কাটা শুরু করেছে আমাদের বসতবাড়ি আর থাকবে না। সামাদ শেখ নামে অপর এক বাসিন্দা বলেন, পানি উন্নয়ন বোর্ড ও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান নদীর মাটি কাটছে না তারা আমাদের ব্যক্তিত জমি কেটে নিয়ে যাচ্ছে।

রবিবার সকালেও তারা ভেকু মেশিন দিয়ে মাটি কাটা শুরু করেছে। এর আগে যখন নদী খনন কাজ করেছে তখন প্রতিটি বাড়ি থেকে তারা মাটি দেওয়ার কথা বলে ৫ হাজার, ৭ হাজার ও ১০ হাজার করে টাকা নিয়েছে।

এখন সেই মাটি কেটে ট্রাকে করে নিয়ে যাচ্ছে। একই এলাকার বাসিন্দা গৌর চন্দ্র দাস বলেন, আমাদের শ্বশানে মাটি দিয়ে আমাদের কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা নিয়েছে। অথচ নিয়ম রয়েছে সরকারী প্রতিষ্ঠান ও জন কল্যানে আসে এমন প্রতিষ্ঠানে বিনে পয়সায় মাটি দিতে হবে।

এখন এই মাটি কেটে নিয়ে গেলে শ্বশান ও কালি মন্দির ভেঙ্গে যাবে দুই এক মাসের মধ্যেই। চন্দনী ইউনিয়ন পরিষদের ৮ নং ওয়ার্র্ডের মেম্বার যুবরাজ শেখ বলেন, কোন অনুরোধ শুনতে চায়নি পানি উন্নয়ন বোর্র্ড। আমি বাধা দিলে পানি উন্নয়ন বোর্র্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী আরিফ সরকার আমার গালে থাপ্পর মেরেছে।

পরে এলাকার শতশত মানুষ বিক্ষোভ মিছিল করলে বন্ধ হয় মাটি কাটা। তিনি আরো বলেন এই এলাকার মানুষের জমি কেটে নিয়ে যাবে এটা কেমন কথা? সরকারের যদি প্রয়োজন হয় তবে জমি অধিগ্রহন করে নিক আমরা বাধা দিবো না।

চন্দনী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান একে এম সিরাজুল আলম চৌধুরী সিরাজ কবলেন খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। পানি উন্নয়ন বোর্ড কোন ক্ষমতা বলে মাটি কেটে নিচ্ছে কাগজপত্রসহ আমরা বসে এটির একটি সুষ্ঠ সমাধান করবো।

মাটি বিক্রির অভিযোগ অস্বীকার করে পানি উন্নয়ন বোর্ড রাজবাড়ীর উপ-সহকারী প্রকৌশলী আরিফ সরকার বলেন, মাটি কাটা নয় খনন কাজ ভালো না হওয়ায় মাটি সমান করার চেষ্টা করা হচ্ছিল এলাকাবাসীই এতে বাধা দিয়েছে।

আমার সাথে খারাপ ব্যবহার করেছে। পানি উন্নয়ন বোর্ড ( পাউবো’ ) রাজবাড়ীর নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ শফিকুল ইসলাম বলেন, হড়াই নদী খনন কাজ নির্দিষ্ট সময়ে শেষ হয়নি।

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মে মাস পযন্ত সময় চেয়েছে। আমরা দেখেছি ৭০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। মাটির বিষয়টি হলো নদী খননের পর ওই মাটি নদী থেকে ৩০ মিটার দুরে রাখার নিয়ম।

ওই মাটি যদি স্থানীয়রা নিতে চায় দেওয়া যাবে। পাশাপাশি কোন দাতব্য প্রতিষ্ঠানে ও দেওয়া যাবে। মাটি বিক্রির কোন নিয়ম নেই। বার্তা বিভাগ শেখ রনজু আহাম্মেদ রাজবাড়ী প্রতিনিধি ফোন নং ০১৭১৬৯১৬৬৮১

নিউজ ঢাকা

আরো পড়ুন,আলোচিত পাপিয়া যুব মহিলা লীগ থেকে বহিষ্কার

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

About নিউজ ঢাকা ২৪

Check Also

করোনাভাইরাসের কারনে অসহায় মানুষের পাশে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা পুলিশ

সারা বিশ্বের মতো  মহামারি করোনাভাইরাসের  ক্ষতিকর প্রভাব পরেছে বাংলাদেশেও। সারাদেশের মানুষ এখন সরকারের নির্দেশ মতে ...

করোনা রোগীদের জন্য কয়েকটি পরামর্শ

করোনাভাইরাস দিনে দিনে বিশ্বে ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে। এ রোগের কারণে এখন পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে এগারো ...