মাটি খেকো

মাটি খেকোদের কারনে বেহাল অবস্থা কলাতিয়ার রাস্তাঘাট ও ফুটওভার ব্রীজের

রাজধানী ঢাকার কেরানীগঞ্জের কলাতিয়া ইউনিয়নে মাটি খেকোদের কারনে বেহাল অবস্থা কয়েকটি রাস্তার ও খাড়াকান্দি ফুটওভার ব্রীজের। মাটি খেকোদের ট্রাক এ সমস্ত রাস্তা দিয়ে বেপড়োয়া যাতায়াতের ফলে ভেঙে গিয়েছে বিভিন্ন রাস্তা ঘাট। এছাড়া অবাধে ট্রাক চলাচলের কারনে হুমকির মুখে খাড়াকান্দি ফুট ওভার ব্রীজটি। যে কোন সময় ব্রীজ ভেঙে ঘটতে পারে দুর্ঘটনা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকার বেশ কয়েকজন জানান, কাদের মেম্বার, সালাম শিকদার, তোরাব আলী, মো: আহনাফ, মো: গিয়াস উদ্দিন, মো: উজ¦ল, গোহুর চান, আউয়াল শিকদার সহ বেশ কয়েকজন এলাকার প্রভাবশালী ব্যাক্তি সিন্ডিগেটের মাধ্যমে মাটি কাটার ব্যবসা করছে। এরা ধলেস্বরী নদীর পাশেই কিছু জায়গা কিনে ঐ জায়গাসহ আশে পাশে নদীর পারের খাস জায়গা থেকেও স্ক্যাবেটর দিয়ে মাটি কাটছে।

এতে করে নদীর পার ভেঙে ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। এসব জায়গা থেকে মাটি ট্রাকের মাধ্যমে বিভিন্ন প্রোজেক্টে বিক্রি করা হচ্ছে। মাটি ভর্তি ট্রাকগুলোর বেপড়োয়া চলাচলের কারনে কলাতিয়া ইউনিয়নের বেশ কিছু রাস্তা নষ্ট হয়ে গেছে।

ফুট ওভার ব্রীজ দিয়ে বড়ো গাড়ি চলাচলের নিয়ম না থাকলেও ট্রাক চলছে নিয়মিত। প্রতিদিন ১০ থেকে ১৫ টি ট্রাক সব মিলিয়ে ২০০ বার যাতায়াত করে ফুট ওভার ব্রীজটি দিয়ে। বাচ্চাদের স্কুলের সময় ট্রাকগুলো যাতায়াত করলে দীর্ঘ জ্যামের সৃষ্টি হয়। বাচ্চারা অনেকটা ঝুকি নিয়েই ফুট ওভার ব্রীজটি পার হয়।

সরেজমিন কলাতিয়ার ৬ নং ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা যায়, নদীর কিনারা ঘেষে কাটা হচ্ছে মাটি। ট্রাক যাতায়াতের ফলে রাস্তায় বড়ো বড়ো গর্ত সৃষ্টি হয়েছে। চলাচল করতে গিয়ে প্রতিনিয়ত পথচারী ও যাত্রীরা বেশ কষ্টের মধ্যে পড়ছেন। খাড়াকান্দি ফুট ওভারব্রীজটির কিছু কিছু অংশে ফাটল ধরেছে। নওয়াবগঞ্জের কয়েকটি ওয়ার্ডে যাওয়া যায় এই ফুট ওভার ব্রীজ দিয়ে।

সামাদ মিয়া এক এলাকাবাসী জানান, ভাঙা রাস্তা ঘাটের কারনে চলাচলে খুবিই কষ্ট হয়, বিশেষ করে মুরব্বী ও রোগীদের এ রাস্তা ধরে চলাটা বেশ কষ্টকর।
লোকমান নামে আরেকজন বলেন এই রাস্তায় ছোটবড় যানবাহন চলাচল করাটা বিপদজনক। বিশেষ করে ছোটযান রিক্সা চলাচল করাটা খুবি ঝুকিপূর্ন । এই ট্রাকগুলো সুন্দর রাস্তাটা নষ্ট করেছে। প্রসাশনের কাছে দাবী করছি অবিলম্বে এই ট্রাকগুলো বন্ধ করে দেয়া হোক।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত কাদের মেম্বারের সাথে কথা হলে তিনি জানান, আমি এখন মাটি কাটার ব্যাবসা করি না। আগে করতাম। এখন উজ¦ল সালাম ওরা করে ওদের সাথে কথা বলেন।

সালাম শিকদার বলেন, শুধু আমাদের ট্রাক যে চলে তা না। কাদের মেম্বারের ট্রাক ই বেশি চলে। এখানে ইট খোলার ট্রাক চলে, বালুর ট্রাক চলে, আমাদের কারনে রাস্তা ঘাটের ক্ষতি হলে আমরা ব্যবসা বন্ধ করে দিবো। কিন্তু বাকিদেরটা কি করবেন। বন্ধ হলে সবারটা বন্ধ হোক আমরা ও বন্ধ করে দিবো

এ বিষয়ে কলাতিয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মো: তাহের বলেন, ট্রাকগুলো সরকারকে টেক্স দেয় ওদের চলতে না করবো কিভাবে ? কে বলেছে ফুট ওভার ব্রীজের ওপর দিয়ে ট্রাক চলতে পারবে না। বাৎসরিক সরকারি টেক্স দিয়েই গাড়ি চলে । আমি এসব ফাউ পদক্ষেপ নিয়ে থাকি না। এসব নিয়া নিউজ করার কি আসে ??

এদিকে কয়েকজন ট্রাক ড্রাইভারের কাছে ট্যাক্স টোকেন দেখতে চাইলে তারা কোন টেক্স টোকেন দেখাতে পারে নি।

এ বিষয়ে কেরানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার অমিত দেবনাথ দেশ জানান, ফুটওভার ব্রীজ দিয়ে ট্রাক চলাচলের কোন নিয়ম নেই । এছাড়া এভাবে রাস্তাঘাট ও নষ্ট করতে পারে না তারা। এ বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

নিউজ ঢাকা

আরো পড়ুন: রাতভর ছাত্রীকে ধর্ষন। ইউপি সদস্যের মধ্যস্ততায় বিয়ে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

কেরানীগঞ্জে আরোও ১১ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত ; মোট শনাক্ত ৪৯৭

কেরানীগঞ্জে  নতুন করে আরো ১১ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।  এ নিয়ে কেরানীগঞ্জে মোট করোনায় …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!