আসুন জানি ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সম্পর্কে ।

 

ব্রডব্যান্ড কি? (What is Brodband?):

 ব্রডব্যান্ডউচ্চ গতিসম্পন্ন ইন্টারনেরট কানেকশন,যার গতি কমপক্ষে ২০০ কিলোবিটস প্রতি সেকেন্ড হতে অত্যন্ত উচ্চগতি পর্যন্ত হয়ে থাকে এমন সংযোগকে বলা হয় ব্রডব্যান্ড। ব্রডব্যান্ড সাধারণত কো-এক্সিয়াল কেবল, অপটিক্যাল ফাইবারকেবল, স্যাটেলাইট কমিউনিকেশন, মাইক্রো-ওয়েভ কমিউনিকেশন কিংবা নেটওয়ার্কিং প্রক্রিয়ায় ডাটা স্থানান্তরের ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়। ডাটা কমিউনিকেশন স্পিডের তারতম্যের ফলে বিভিন্ন ব্যান্ডের উদ্ভব হয়। আর এসব ব্যান্ড আবার ব্যবহৃহয় বিভিন্ন গতিসম্পন্ন বিভিন্ন প্রযুক্তিতে ডাটা স্থানান্তরে । তার মধ্যে কিছু হল ডিএসএল (DSL)। Digital Subscriber Line হলো ডিএসএল (DSL) এর পূর্ন রূপ, যা কিনা কপার এর টেলিফোন লাইন এর মাধ্যমে সংযোগ দিয়ে থাকে ।

লাইন ওয়ে ফ্রিকুইন্সি বিভক্ত থাকে দুই ভাগে।

১। ডাটা আদান প্রদান এবং

২। ভয়েস আদান প্রদান

সাধারনত ডিএসএল (DSL) এর ডাটা স্পিড হয়ে থাকে ৭৬৮ কেবিপিএস (Kbps) থেকে ৭ এমবিপিএস (Mbps)। কিন্তু, ব্যবহারকারীকে অবশ্যই টেলিফোন অফিসথেকে ২ কিঃমিঃ এর মধ্যে হতে হবে।

ফাইবার (Faiber) :

ফাইবার অপটিক ব্রডব্যান্ড সাধারনন্ত “ফাইবার” নামেই পরিচিত। প্রচলিত কপার তার বাকো-অক্সিয়াল ক্যাবলের তুলনায় অনেক দ্রুত গতিতে ডাটা আদান প্রদান করে থাকে। ফাইবার অপটিক ক্যাবল সাধারন্ত ডাটা পরিবহনের লাইট সিগনাল বা আলোক তরঙ্গ ব্যবহার করে। ফাইবার অপটিক এর ডাটা ট্রান্সফার (Data Transfer) রেট প্রায় ১০০ টেরাবিট প্রতি সেকেন্ড (Per Second)।

ক্যাবল (Cable) :

ক্যাবল ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট প্রচলিত ক্যাবল টিভি (Television) এর লাইনের মাধ্যমেই ডাটা পরিবহন করে থাকে ।স্বাভাবিক ভাবে ক্যাবল ইন্টারনেট এর স্পিড ৬ এমবিপি এস থেকে ১৮ এমবিপিএস (Mbps) পর্যন্ত, যেখানে আরো উন্নত মানের ক্যাবল নেটওয়ার্ক ৭৫ এমবিপিএস পর্যন্ত স্পিড দিতে পারে । কেবল ইন্টারনেট গতি একই কেবলের সংযোগের মাধ্যমে একই সান্নিধ্যের মধ্যে উপস্থিত ব্যবহারকারীদের দ্বারা প্রভাবিত হতে পারেন।

স্যাটেলাইট (Satellite):

স্যাটেলাইট ব্রডব্যান্ড মুলত পৃথিবীর চারিদিকে ঘুর্নায়মান স্যাটেলাইটের মাধ্যমে ব্যাবহার করাহয়ে থাকে।স্যাটেলাইট ব্রডব্যান্ড সেখানেই ব্যাবহার করা হয়ে থাকে যেখানে প্রচলিত টেরিস্ট্রিয়াল ব্রডব্যান্ড প্রযুক্তি যেমন ডিএসএল (DSL) বা ফাইবার অপটিক ক্যাবল পৌছানো সম্ভব না । এর ইন্টারনেট গতিকে প্রচলিত DSLসংযোগের সাথে তুলনা করা যেতে পারে। এর স্পিড ৭৬৮ কেবিপিএস থেকে ১০এমবিপিএস (Mbps) হতে পারে। কিন্তু এর স্পিড নির্ভর করে অনেকটা আবহাওয়া ও স্যাটেলাইটের পজিশনের উপর।

মোবাইল ব্রডব্যান্ড (Mobile Brodband):

তারহীন মোবাইল ব্রডব্যান্ড প্রযুক্তি এক্সেস করা হয়ে থাকে ৩জি (3G) বা ৪জি(4G) এবং এলটিই (LTE ) সক্রিয় সেলফোন বা ই-বুক রিডার এর মাধ্যমে । এর স্পিড নির্ভর করে ডাটা (Data) ক্যারিয়ার ও ব্যাবহারকারীর দুরত্বের উপর। সবচেয়ে দ্রুত গতির তারহীন প্রযুক্তি এলটিই (LTE) সর্বোচ্চ ১৫০ এমবিপিএস (Mbps) পর্যন্তস্পিড দিয়ে থাকে ।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

যেভাবে ফোনের ব্যাটারি ভালো রাখবেন

  মোবাইল ফোনের অন্যতম চালিকাশক্তি হচ্ছে ব্যাটারি। ব্যাটারিতে সমস্যা হলে সেই ফোন ব্যবহার করে শান্তি …

20 comments

  1. Nice weblog here! Also your web site so much up very
    fast! What web host are you using? Can I get your associate link
    in your host? I desire my web site loaded up as quickly as yours lol https://hydroxychloroquinem.mrdgeography.com/

  2. greatest content, i love it

  3. outstanding post, i love it

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!