ম্যানহলে

গোয়ালন্দে গরীবের ওষুধ মিললো ম্যানহলে!

শেখ রনজু আহাম্মেদ রাজবাড়ী প্রতিনিধি : রাজবাড়ী উপজেলার উজানচর উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের পেছন থেকে এসকল ওষুধ উদ্ধার করা হয়।রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে মেয়াদ উত্তীর্ণ সরকারী বিনামূল্যে বিতরণের ওষুধ পরিত্যাক্ত ম্যানহলে থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।

দরিদ্রদের জন্য বরাদ্দকৃত ওষুধ বিতরন না করে ফেলে দেওয়ায় স্থানীয়রা চরম বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে সরেজমিন উপজেলার উজানচর ইউনিয়নের রিয়াজউদ্দিন পাড়া গ্রামের ইউনিয়ন উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, স্বাস্থ্য কেন্দ্র ভবনের পেছনে পরিত্যাক্ত ম্যানহোলের মধ্যে বিভিন্ন ধরনের মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ পরে রয়েছে।
বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভে ফুঁসছে এলাকাবাসী। এসময় স্থানীয় হাসিবুল হাসান রিপন, আলাউদ্দিন শেখ আলাল, মুরাদ মৃধাসহ অনেকেই অভিযোগ করেন, উজানচর উপ স্বাস্থ্যকেন্দ্রের উপ সহকারী কমিনিটি মেডিকেল অফিসার মোকলেছুর রহমান এখানে চিকিৎসা নিতে আসা বেশীর ভাগ দরিদ্র মানুষকে সরকারী ওষুধ না দিয়ে ব্যবস্থাপত্রের ওষুধ বাজার থেকে কিনে নিতে বলেন। সরকারী ওষুধের কথা বললে তিনি রোগীদের সাথে চরম দুর্ব্যবহার করে থাকেন।
এছাড়া সরকারী স্বাস্থ্যকেন্দ্রেই তিনি টাকার বিনিময়ে ওষুধ সরবরাহের অভিযোগ করেন তারা। মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ফেলে দেয়ার বিষয়টি এলাকাবাসীর নজরে আসলে মোকলেছুর রহমান ওই ম্যানহোলের ভেতর থেকে আরো কিছু ওষুধ অনত্র সরিয়ে ফেলেছেন বলে তারা দাবি করেন।
স্থানীয় সালাউদ্দিন মৃধা জানান, সরকারী বিনামূলে বিতরণের ওষুধ গুলো মোকলেছুর রহমান দরিদ্র রোগীদের না দিয়ে বাইরে বিক্রি করেন। তার নিজেরও রাজবাড়ী সদর উপজেলা লালগোলা বাজারে দেশ ফার্মা নামের একটি ওষুধের দোকান রয়েছে। তিনি প্রতিদিনই কিছু কিছু করে ওষুধ নিয়ে যান।
ওষুধ চুরির ক্ষেত্রে তিনি অত্যন্ত সাবধানী হওয়ায় অনেক সময় ওষুধের মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে যায়। তখন ওই ওষুধ গুলো ফেলে দিতে হয়। কিছুদিন পূর্বেও এ স্বাস্থ্যকেন্দ্রের পাশে দুই বস্তা মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ পাওয়া যায়।
স্থানীয় বাসিন্দা মুক্তি বেগম জানান, তিনি বিভিন্ন সময় শারীরিক অসুস্থ্যতা নিয়ে এ স্বাস্থ্যকেন্দ্রে এসেছেন। কোনদিনও তাকে ওষুধ দেয়া হয়নি। ব্যবস্থাপত্র দিয়ে বাজার থেকে ওষুধ কিনে নিতে বলেছেন মোকলেছুর রহমান। ওষুধের কথা বললে উল্টো অপমানজনক কথা শুনতে হয়েছে তাকে বলে তিনি অভিযোগ করেন। অভিযোগ প্রসঙ্গে মোকলেছুর রহমান জানান, তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ গুলো সঠিক নয়। সরকার থেকে সব ধরনের ওষুধ সরবরাহ করা হয় না।
আর যেগুলো সরবরাহ থাকে না সেই ওষুধগুলোই কেবলমাত্র বাজার থেকে কিনতে বলা হয়। তার ওষুধের দোকান আছে স্বীকার করে তিনি বলেন, আমার দোকানে কোন সরকারী ওষুধ বিক্রি করা হয় না।
ম্যানহোলের মধ্যে কি ভাবে মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ এলো এ ব্যাপারে তার জানা নেই বলে তিনি দাবি করেন। উজানচর উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের মেডিকেল অফিসার ডা. আফরোজা সুলতানা কয়েকদিন আগে এখানে যোগদান করেছেন জানিয়ে বলেন, পরিত্যাক্ত ম্যানহোলের মধ্য থেকে উদ্ধার হওয়া মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ গুলো স্বাস্থ্য বিভাগের নয়। কিছু ওষুধ বিদেশী এবং কিছু ওষুধ পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আসিফ মাহমুদ জানান, বিষয়টি জানার পর অভিযুক্ত উপ সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার মোকলেছুর রহমানকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে।
নোটিশের জবাব পেলে এবং কোন প্রকার অনিয়ম হলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। এ বিষয়ে গোয়ালন্দ উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুবায়েত হায়াত শিপলু জানান, অভিযোগটি গুরুতর হওয়ায় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাকে এ বিষয়ে একটি তদন্ত কমিটি করার নির্দেশ দিয়েছি।
তদন্ত কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী ব্যাবস্থা গ্রহনের জন্য স্বাস্থ্য বিভাগের সাথে তিনি কাজ করবেন। বার্তা বিভাগে শেখ রনজু আহাম্মেদ রাজবাড়ী প্রতিনিধি ফোন নং ০১৭১৬৯১৬৬৮১
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

সাংসদ ছোট মনিরের সুস্থতা কামনায় ভূঞাপুর প্রেসক্লাবে দোয়া মাহফিল

  নাসির উদ্দিন টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইল-২ (ভূঞাপুর-গোপালপুর) আসনের সাংসদ ছোট মনির এর করোনাভাইরাস মুক্তি …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!