তীব্র গরমে রোজা রেখে কাজ করতে গিয়ে ৪ বাংলাদেশি শ্রমিকের মৃত্যু

তীব্র গরমে রোজা রেখে কাজ করতে গিয়ে ৪ বাংলাদেশি শ্রমিকের মৃত্যু

তীব্র গরমে ১৫ ঘন্টা রোজা রখে কাজ গরতে গিয়ে ওমানে ৬ নির্মান শ্রমিকের মৃত্যু হয়। এদের মধ্যই ৪ জন বাংলাদেশি রয়েছে।

পবিত্র রমজান মাস শুরুতেই ওমানের তাপমাত্রা ৫০ ডিগ্রিতে পৌচেছে। এতে করে রমজানের প্রথম সপ্তাহেই দেশটির রাজধানী মাসকটে স্টোক করে মারা যা্য় ঔ শ্রমিকেরা।

গেল আট বছরের মধ্যে এবারই ওমানে সর্বোচ্চ গরম অনুভূত হচ্ছে। এর আগে ২০০৯ সালে দেশটিতে দেখাগিয়েছিলো এমন তীব্র গরম। রোজা রেখে কাজ করতে গিয়ে নাজেহাল হচ্ছেন শ্রমিকরা । বাংলাদেশি শ্রমিকরাও এতো গরম সহ্য করতে পারছে না। তার পরেও আ্ল্লাহ তায়লার মহান হুকুম পালন করার জন্য তারা কষ্ট করেই রোজা রাখছেন।

স্থানীয় সূত্র জানিয়েছে অতিরিক্ত গরমের কারনে হিট স্ট্রোক মৃতু ছয় শ্রমিকের মধ্যে চারজন বাংলাদেশি এবং দুইজন পাকিস্তানি নাগরিক।
চিকিৎসকদের ভাষ্য মতে রমজানে টানা ১৫ ঘণ্টা তাপদাহ সহ্য করে রোজা রেখে কাজ করতে গিয়ে এমন দুর্ঘটনা ঘটছে। এর আগে গত বছরের রমজানে অতিরিক্ত গরমে ৯ জন শ্রমিকের মৃত্যু হয়।

মাসকট শহরের ঘটনাস্হলের কাছের একজন ব্যাক্তি জানান, মাঝে এক ঘন্টার  কর্ম বিরতি দিয়ে এসকল শ্রমিকেরা সকাল ৭টা থেকে ৬টা পর্যন্ত কাজ করতো। সরকার রমজান মাসে দুই ঘন্টা কর্মবিরতীর ঘোষনা দিলে ও কোম্পানী শ্রমিকদের সেই সুযোগ সুবিধা দেয় নি।

বাংলাদেশি এক শ্রমিকের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, রোজা রেখে কাজ করাটা খুবি কষ্টদায়ক। এক এ তো না খেয়ে থাকা তার উপর তীব্র গরমে ভারি কাজ করা। আপনি করলে মাথা ঘুরাবে , দুর্বল হয়ে পরবেন আপনি।কাজ করতে ইচ্ছই করবে না। কিন্তু পরিবারের কথা চিন্তা করে কাজ করতেই হয়। পরিবারের মুখের হাসির কথা চিন্তা করলে সকল কষ্ট দূর হয়ে যায়। আপনার কাছে এছাড়া আর অন্য কোন উপায় ও নেই।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

ডিজিটাল কেরানীগঞ্জ গড়তে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগ অগ্রনী ভূমিকা পালন করবে

এক সময় কেরানীগঞ্জ ছিলো বাত্তির নিচে অন্ধকার। ২০০৮ সালে নির্বাচনে নসরুল হামিদ বিপু কেরানীগঞ্জ থেকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!