বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি প্রস্তুতি

বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি প্রস্তুতি ২০১৭

পরীক্ষা শেষে প্রত্যেক ছাত্র-ছাত্রীর জন্য, মামার বাড়ি থেকে নিয়ে সর্বত্র বিচরণ করে বেড়ানো যেন অলিখিত এক নিয়ম। তবে এর ঠিক উল্টো টা দেখা যায় এইচ.এস.সি পরীক্ষার পর । সবাই ছুটছে। কেউ শেষ প্রস্তুতিটুকু সেরে নিতে আবার কেউ নিজেকে একটু ঝালিয়ে নিতে। আর এমনটা কেনই বা হবে না? জীবনকে সাজিয়ে তোলার আসল সময়টাই তো ,”বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি প্রস্তুতি”।

বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষার পদ্ধতিঃ

বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি প্রস্তুতি শুরু করার আগে অবশ্যই শিক্ষার্থীর উচিৎ তার পছন্দের ইউনিট বেছে নেয়া। বেশীরভাগ  পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলো, যেমন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ইত্যাদিসহ অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয় এর ক্ষেত্রে পরীক্ষাপদ্ধতি হয় ইউনিট ভিত্তিক। এক্ষেত্রে,

  • ক ইউনিট- বিজ্ঞাণ বিভাগ এর শিক্ষার্থীদের জন্য।
  • খ ইউনিট- মানবিক বিভাগ এর শিক্ষার্থীদের জন্য।
  • গ ইউনিট- ব্যাবসায় শাখা শিক্ষার্থীদের জন্য। এবং,
  • ঘ ইউনিট- সকল বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য নির্ধারিত।
বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি প্রস্তুতি
কার্জন হল -ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

আবার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এ সমুদ্রবিজ্ঞান নিয়ে পড়তে চাইলে সেক্ষেত্রে সেখানে অতিরিক্ত “ছ ইউনিট রয়েছে। আর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় এ রয়েছে সরাসরি আইন অনুষদ এর  অধীনে পরীক্ষা দিয়ে আইন নিয়ে পরীক্ষা দেয়ার সুযোগ। তবে বিশ্ববিদ্যালয় যেটাই হোক,যে কোন ধরণের জটিলতা এড়াতে শিক্ষার্থীদের উচিৎ ফর্ম কেনার সময় এ ব্যপারগুলো সম্পর্কে ভালোভাবে খোজ খবর নেয়া।

বিভিন্ন বিষয়ের প্রস্তুতিঃ

বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি প্রস্তুতি নেয়ার ক্ষেত্রে প্রতিটি বিষয়ের ওপর পরিশ্রম করতে হবে প্রচুর পরিমাণে। কেননা এ পরীক্ষার মাধম্যমেই শিক্ষার্থীদের জীবনের পরবর্তী ধাপ নির্দিষ্ট করা হবে। আর দ্বিতীয়বার এর সুযোগ যেহেতু থাকছে না।  তাই একবারেই পুরো টা দিয়ে চেষ্টা করা অতি জরূরি।

  • বাংলা প্রস্তুতিঃ  গদ্য ও পদ্য এর ক্ষেত্রে মূল বিষয়, লেখক পরিচিতি, লেখকের অন্যন্য সাহ্যিত্যকর্ম ইত্যাদি বিষয়গুলো ভালোভাবে আত্মস্থ করতে হবে। পাশাপাশি সাহিত্যপাঠ বাদ দিলেও চলবে না। এছাড়া বাংলা ব্যাকরণ এর জন্য ভাষা, ব্যাকরণ, বাক্য সংকোচন, সমাস, বিভক্ত, কারক, বচন , অনুসর্গ, বাগধারা, উপসর্গ এ বিষয়গুলোর দিকে জোর দিতে হবে।

 

  • ইংরেজি প্রস্তুতিঃ বিশ্ববিদ্যালয় এ ভর্তি ক্ষেত্রে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ এ বিষয়ে সাধারণত প্রথ পত্রের তুলনায় দ্বিতীয় পত্র বেশী জোর দেয়া হয়। গ্রামার অংশে গুরুত্বপুর্ণ টপিকগুলো হচ্ছে, Parts of Speech, Tense, Article, Right form of verbs, Translation, Voice, Narration, Correction, Synonyms, Antonyms, Transformation Of Sentence, Comprehension.

 

  • সাধারণ জ্ঞাণঃ সাধারণ জ্ঞাণ এর ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ও আনর্জাতিক এ দুই প্রেক্ষাপট এর ই প্রসস্তুতি নিতে হবে। এ ব্যাপার এ ভালো করার জন্য অবশ্যই দেশী বিদেশী নিউজ মিডিয়া,এবং সংবাদপত্রগুলোতে নিয়মিত নজর রাখতে হবে। এছাড়া বাংলাদেশ এর প্রেক্ষাপটের জন্য এ দেশের ভূ-প্রকৃতি, আয়তন, শীক্ষা, অর্থনীতি, সমাজ, রাজনীতির ব্যপার এ খেয়াল রাখতে হবে। এছাড়া দেশের প্রতিটি দিন এর গুরুত্বপূর্ণ ব্যপারগুলো আয়ত্ব আনতে হবে। আর আন্তর্জাতিক এর ক্ষেত্রে বিভিন্ন বিশেষ পুরষ্কার, মহৎ ব্যাক্তিদের ঘটনা, গুরুত্বপূর্ণ ঘটনাগুলো, বৃহত্তম,ক্ষুদ্রতম, নামকরা, ব্যাবহুল ইত্যাদি ব্যাপারগুলো গুরুত্বপূর্ণ।

এছাড়া বাকী গ্রুপভিত্তিক বিষ্যগুলোর ক্ষেত্রে পাঠ্যবইকে প্রাধাণ্য দিতে হবে। কেননা এ প্রশ্নগুলো সাধারণ পাঠ্যপুস্তক এর বাইরে থেকে আসে না। তাই নোট করে গুরুত্বপূর্ণ ব্যপারগুলো চিনহিত করে সেগুলো পড়তে হবে। প্রয়োজন এ বড়দের সাহায্য নিতে হবে।

বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষা এমন শীক্ষার্থীদের জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপুর্ণ ঘটনার মধ্যে পড়ে। তাই অবহেলা না করে প্রতিটই মিনিট কে কাজে লাগাতে হবে এবং নিজের সর্বোর্চ প্রস্ততি নিতে হবে। সবচেয়ে ভালো হয় যদি এ সময় অভিজ্ঞ সারো সাহায্য ও পরামর্শ নেয়া সম্ভব হয়।

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

তরুণ কলাম লেখক ফোরামের দ্বিতীয় বর্ষসেরা লেখক জবির ইমরান

জবি প্রতিনিধি: বাংলাদেশ তরুণ কলাম লেখক ফোরামের ২০২০-২১ বর্ষের সেরা লেখক হিসেবে দ্বিতীয় স্থান অধিকার …

21 comments

  1. Hello there, You have done a great job. I will certainly digg it and personally recommend to my friends.
    I’m confident they will be benefited from this website. http://herreramedical.org/dapoxetine

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!