কেরানীগঞ্জের গার্মেন্টস

শীতের অপেক্ষায় কেরানীগঞ্জের গার্মেন্টস ব্যাবসায়ীরা

হেমন্তের শেষ সময় চলছে এখন। এই সময়ে শীতের আমেজ পরার কথা থাকলেও, শীতের বিন্দু মাত্র দেখা নেই। আর এরই প্রভাব পরেছে কেরানীগঞ্জের শীতের পোষাক বিক্রিতে।কেরানীগঞ্জের গার্মেন্টস  দোকানীরা অপেক্ষা করছে শীতের। অলস সময় পার করছেন ব্যবসায়ীরা।

কেরানীগঞ্জ গার্মেন্টস ব্যবসায়ী দোকান মালিক সমিতির আওতায় আগানগরে প্রায় চার হাজার গার্মেন্টস কারখানা এবং আট হাজারের বেশি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে।  আর এসকল দোকান থেকে পাইকারী পোশাক কিনতে দেশের নানা প্রান্ত থেকে ক্রেতারা আসেন। শুধু তাই নয়, এখানকার পোষাক এর চাহিদা রয়েছে দেশের বাহিরেও। ছোট বড়ো মাঝারী, সব বয়সের সব ধরনের সবার জন্য পোষাক পাওয়া যায়। দামেও কম এখানকার পোষাক। তাছাড়া পোষাকের গুনগত মান অনেক ভালো। তাই কেরানীগঞ্জে তৈরী পোষাকের কদর রয়েছে দেশ জুড়ে।

কিন্তু শীতের পোষাক বিক্রির মৌসুম শুরু হলেও বেচা কিনা না হওয়াতে হতাশায় ভুগছেন ব্যাবসায়ীরা। বেচা কেনা না হবার পিছনে এখন পর্যন্ত শীতের প্রবাহ শুরু না হওয়াকে দায়ী করছেন অনেকে। কেউ কেউ বলছেন, দেশে অর্থনৈতিক মন্দাভাব চলছে , তাই বেচা বিক্রি খারাপ। কারন যাই হোক না কেন, বেচা কিনা না হওয়াতে দারুন ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে কেরানীগঞ্জের গার্মেন্টস ব্যবসায়ীরা।

নবরাজ প্যান্ট হাউজের কর্নধার হাজী মো: জাহাঙ্গীর হোসেন  জানান, শীত এখোনো পরেনি, তাই বেচা কেনা ও ভালো না। গেল বছর এই সময় মোটামুটি শীত পরে ছিলো কিন্তু এই বছর এখোনো শীত পরেনি। আর যেহুতু এটা সিজনাল ব্যবসা তাই শীতের উপর নির্ভর করে কেনা বেচা কেমন হবে। শীত উপলক্ষে প্রতিটা দোকানেই প্রায় কোটি টাকার উপরে কেনা বেচার টার্গেট থাকে। গেল কয়েক সীজনে শীত মোটামুটি কম পরায় আমাদের বেচা কেনা ও খুব কম হচ্ছে যার কারনে লাভ করা তো দূরের কথা , চালান তুলতেই কষ্ট হয়।

একই কথা বললেন মমতাজ এন্টারপ্রাইজের সত্তাধিকারী জামাল উদ্দিন মাহমুদ। তার ভাষ্য মতে শীত না পড়ায় ক্রেতারা মার্কেটে আসছে না। বেচা কেনা হচ্ছে না। তবে আগামী সপ্তাহ নাগাদ ক্রেতারা বাজারে আসবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। এছাড়াও দেশের বাহির থেকে  বিশেষ করে চীন থেকে কাপড় আনার ব্যাপারে সরকারের টেক্স কমানোর দাবী জানান এই ব্যাবসায়ী। চায়না থেকে পন্য আনতে গেলে আগের চেয়ে দিগুন টেক্স দিতে হয়। এভাবে চলতে থাকলে বিদেশী পন্যের দেশীয় বাজার দিন দিন ধ্বংশ হয়ে যাবে বলে হতাশা প্রকাশ করেন তিনি।

শীতের পোষাক বাজার নিয়ে কেরানীগঞ্জ গার্মেন্টস ব্যবসায়ী ও দোকান মালিক সমিতির কোষাধ্যক্ষ শেখ কাওসার জানান, আমাদের দেশ ছয় ঋতুর দেশ। কিন্তু বর্তমান প্রেক্ষাপটে দুই ঋতুর দেশ বললে চলে। দেশের অর্থনৈতিক দিক থেকে বললে ব্যবসার অবস্থা আগের তুলনায় ভালো। তাই শীতের পোষাক জমজমাট বিক্রির ব্যাপারে আমরা আশাবাদী ।এশিয়ার বৃহত্তম পোষাক শিল্পের মার্কেট এই কেরানীগঞ্জে। আমাদের এখানের পোষাকের মান অনেক ভালো।বিশ্বের যে কোন দেশের পোষাকের সাথে চেলেন্জ করে এখানে পন্য তৈরি করা হয়। সমগ্র বাংলাদেশ থেকে ক্রেতা আসে আমাদের এই খানে। আর তাদের নিরাপত্তা দিতে কেরানীগঞ্জ গা: ব্যবসায়ী ও দোকান মালিক সমিতি সার্বক্ষনিক ভাবে তৎপর রয়েছে।

নিউজ ঢাকা

আরো পড়ুন কেরানীগঞ্জ গার্মেন্টস ব্যবসায়ী ও দোকান মালিক সমবায় সমিতির নির্বাচনী সভা অনুষ্ঠিত

ঢাকার কেরানীগঞ্জ উপজেলার গার্মেন্টস ব্যবসায়ীদের সবচেয়ে বড় সংগঠন কেরানীগঞ্জ গার্মেন্টস ব্যবসায়ী ও দোকান মালিক সমবায় লিঃ এর নির্বাচনী বিশেষ সাধারন সভা ২০১৯ ইং অনুষ্ঠিত হয়েছে ।

 সোমবার বেলা ১২টার দিকে  উপজেলার আগানগর ইউনিয়নে জেলা পরিষদ মার্কেটে সমিতির অফিসে এ সভা অনুষ্ঠিত হয় । নির্বাচনী সাধারন সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেরানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক শাহীন আহমেদ । বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা জেলা সমবায় অফিসার মো: জহিরুল হক ও উপজেলা সমবায় অফিসার রওশন আরা ।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

শনাক্তের সংখ্যা

হাজার ছাড়ালো কেরানীগঞ্জে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা

ঢাকার কেরানীগঞ্জে ৩০ জুন মঙ্গলবার ৬৮ জনের করোনা টেষ্টের রেজাল্ট পজেটিভ এসেছে।  এ নিয়ে কেরানীগঞ্জে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.