কেরানীগঞ্জে চাঞ্চল্যকর পশু ব্যবসায়ী হত্যা মামলায় তিন আসামীর আদালতে দায় স্বীকার

কেরানীগঞ্জে চাঞ্চল্যকর পশু ব্যবসায়ী বাদল হত্যা মামলার এজাহারনামীয় ৩ আসামী আদালতে ১৬৪ ধারায় হত্যাকান্ডের স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি দিয়েছে।

গত ৯ আগষ্ট ঈদ উল আযাহার দুই দিন আগে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মো: বাদল মিয়া (৫৫) কে দুর্বিত্তরা পিটিয়ে হত্যা করে। এই ঘটনায় ওই দিন রাতেই নিহতের বড়ো ছেলে মোঃ স্বপন হোসেন বাদী হয়ে এজাহারনামীয় ৭ জন এবং অজ্ঞাত নামা আরো ১০/১২জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই মোঃ রফিকুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, কেরানীগঞ্জ মডেল থানাধীন জিনজিরা ইউনিয়নের আমিরাবাগের মৃত মোবারক হোসেনের ছেলে মো: বাদল মিয়া।

গত ৯ আগষ্ট কোরবানী ঈদ উপলক্ষে বাদল মিয়ার ছোট ছেলে সজল ৬টি ছাগল বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে জিনজিরা হাটে নিয়ে আসতেছিলো। সজল ছাগল নিয়ে গোলজারবাগ এলাকায় পৌছালে জনৈক সাচ্চু মিয়া ছাগলের দাম জিঞ্জেস করে। সজল ছাগলের দাম বেশি বললে সাচ্চু মিয়া সজলকে চোর বলে গালমন্দ করে।

পরে সজল ফোন করে তার বাবা বাদল ও বড় ভাই স্বপনকে ঘটনাস্থলে আসতে বলে। খবর পেয়ে তারা ঘটনা স্থলে এসে সাচ্চু মিয়ার সাথে কথা বলেন। বাদল সাচ্চু মিয়াকে বলেন, এগুলো চোরা ছাগল না, আমাদের নিজস্ব খামারের ছাগল। আমি পারিনা বিধায় ছেলেকে বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে পাঠিয়েছি।

তার পরেও সাচ্চু মিয়া বাদল মিয়ার সামনে ছেলেকে চোর বলে গালমন্দ করতে থাকে তখন দুই জনের মধ্যে তর্কবিতর্ক হয়। তর্ক বিতর্কের এক পর্যায়ে বাদল মিয়া সাচ্চু মিয়াকে চর মারে। পরে এলাকার মুরব্বিরা উপস্থিত হয়ে বিষয়টি ঘটনাস্থলেই মিমাংসা করে দেয় । মিমাংশা হবার পরেও ঘটনা শোনার পরে সাচ্চু মিয়ার ছেলে ও ভাতিজারা ক্ষিপ্ত হয়ে বাদল মিয়ার আমিরাবাগস্থ ছাগলের খামার থেকে তুলে নিয়ে আসে ।

বাদল মিয়াকে গুলজারবাগ এলাকার কাসেম হাজীর বাড়িতে এনে আটকিয়ে বেদম মারধর করে।আটকের খবর পেয়ে বাদলের লোকজন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় এবং গুরুত্বর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা বাদলকে মৃত ঘোষনা করে।

এই ঘটনায় নিহতের বড়ো ছেলে কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় ওই দিন রাতেই মোঃ খোকন(৩০), মোঃ রাজন(২৭), মোঃ রনি(২৩), মোঃ বিশাল(১৯) ও হাজী সাচ্চু(৬০) মোঃ বাপ্পী(২৮) ও মোঃ অনিকে (২৮) এজাহার নামীয় এবং আরো অজ্ঞাত ১০/১২ জন অজ্ঞাত আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।

থানা মামলা হওয়ার পর থেকে আসামীদের গ্রেপ্তারের জন্য বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করি। এক পর্যায়ে আসামীরা পুলিশের হাতে গ্রেপ্তারের ভয়ে আতঙ্কিত হয়ে গত ১১ই সেপ্টেম্বর এ মামলার এজাহারভুক্ত ৭ আসামীর মধ্যে ৫ আসামী মোঃ খোকন(৩০), মোঃ রাজন(২৭), মোঃ রনি(২৩), মোঃ বিশাল(১৯) ও হাজী সাচ্চু(৬০) ঢাকার নিম্ন আদালতে আত্বসমর্পন করে। তখন আদালত তাদেরকে জেলহাজতে পাঠিয়ে দেন।

পরে আমি মামলার এই ৫ আসামীকে ১০দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতের কাছে একটি আবেদন করলে আদালত ৪ জনের দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে। এবং অপর আসামী হাজী সাচ্চুকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদ করার আদেশ দেন। ২ দিনের রিমান্ড শেষে মো: বিশাল, মো: খোকন ও মো: রাজন আদালতে ১৬৪ ধারায় হত্যাকান্ডের স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি দিয়েছে।

তারা বলেন, তাদেও মুরব্বী সাচ্চু মিয়াকে মারধর ও অপমানের প্রতিশোধ হিসাবে বাদল কে ডেকে এনে তারা মারধর করে। মারধরের এক পর্যায়ে বাদল জ্ঞান হারিয়ে মাটিয়ে লুটিয়ে পরলে তারা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় বলে আদালতে স্বীকার করে। সাচ্চু মিয়াও জেলগেটে হত্যার দায় স্বীকার করেছে বলে তিনি জানান। এ ঘটনায় আরেক আসামী মোঃ রনি হত্যার দ্বায় স্বীকার করে আদালতে কোন জবানবন্দি দেয়নি।
এস আই রফিকুল ইসলাম আরো বলেন, মামলার এজাহার ভুক্ত অন্য দুই আসামী মোঃ বাপ্পী(২৮) ও মোঃ অনি(২৮) এখনো পলাতক রয়েছে। তবে তাদেরকে গ্রেপ্তারের জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ।

মামলার বাদী মৃত মো: বাদল মিয়ার বড়ো ছেলে মোঃ স্বপন হোসেন জানান, মামলার আসামীরা প্রভাবশালী ও ক্ষমতাশীল রাজনৈতিক দলের নেতা কর্মী হওয়ায় একটি মহল তাকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য বিভিন্নভাবে চাপ দিচ্ছে এবং তাকে নানা ভাবে হুমকি ধমকি দিচ্ছে। তিনি তার বাবার হত্যার সঠিক বিচার দাবী করেন।

কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ওসি শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের বলেন, রিমান্ডে তিন আসামী হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে। বাকি পলাতক আসামীদের গ্রেপ্তারের সর্বোচ্চ চেষ্টা চালানো হচ্ছে। খুব শীঘ্রই তাদের গ্রেপ্তার করা হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

নিউজ ঢাকা

আরো পড়ুন,শুধু হালাল খাদ্যাভাসের কা’রনে করোনা ভা’ইরাস থেকে নিরাপদে রয়েছে চীনা মু’সলিম’রা

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

কেরানীগঞ্জে করোনা হাসপাতালের সামনে পশুর হাট !

ঢাকার কেরানীগঞ্জে জিনজিরা ইউনিয়নে জিনজিরা ২০ শয্যা হাসপাতালে চলছে করোনা রোগীদের চিকিৎসা। সারা দেশে করোনা …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!