অনাকাঙ্ক্ষিত ও ইচ্ছাহীন

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে এসে র‍্যাব-১০ এর ক্ষমা প্রার্থনা

অপূর্ব চৌধুরী, জবি প্রতিনিধি : গত বৃহস্পতিবার ( ১২ সেপ্টেম্বর) সায়দাবাদ মেয়র মোহাম্মদ হানিফ ফ্লাইওভার এর নিচে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের মিরপুরগামী উত্তরণ-২ বাসের শিক্ষার্থীদের ওপর র‍্যাবের অতর্কিত হামলার ঘটনাকে অনাকাঙ্ক্ষিত ও ইচ্ছাহীন বলে দুঃখ প্রকাশ করেছেন র‍্যাব -১০ এর প্রতিনিধি দল।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীদের তুমুল আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উদ্যোগে রবিবার দুপুর ১টার দিকে র‍্যাব-১০ এর একটি প্রতিনিধি দল জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে আসেন এবং উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান এর সাথে আনুষ্ঠানিক সাক্ষাৎ করেন।

এসময় র‍্যাব এর প্রতিনিধি দল জানান, র‍্যাব মহাপরিচালক বেনজির আহমেদের নির্দেশে র‍্যাব-১০ উক্ত হামলার বিষয়টি তদন্ত করে দেখছেন।সেই সাথে এই ঘটনায় কোন র‍্যাব সদস্যের বাড়াবাড়ির প্রমাণ পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে দ্রুত প্রশাসনিক ব্যাবস্থা নেওয়ার নিশ্চিয়তাও প্রদান করেন প্রতিনিধি দলটি। আহত শিক্ষার্থীদের ক্ষতিপূরণ প্রদান ও চিকিৎসার সামগ্রিক ব্যয় ও র‍্যাব বহন করবে বলে জানানো হয়েছে।

সাক্ষাৎ এর সময় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক সেলিম ভূঁইয়া, রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মো. ওহিদুজ্জামান,র‍্যাব-১০ এর অধিনায়ক মো. কাইয়ুমুজ্জামান খান, ডিএমপি লালবাগ জোনের ডিসি মো. মুনতাসিরুল ইসলাম, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টরবৃন্দ এবং র‍্যাব ও পুলিশের অন্যান্য অনেক উর্ধ্বতন কর্মকতা ও উপস্থিত ছিলেন।

উক্ত সাক্ষাৎ এর আগে শিক্ষার্থীদের ওপর র‍্যাবের অতর্কিত হামলার প্রতিবাদে সকাল থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা পুরান ঢাকার রায়সাহেব বাজার মোড়ে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ করতে থাকেন ও হামলায় জড়িত র‍্যাব সদস্যদের দ্রুত বিচারের দাবিতে প্রশাসনের প্রতি হুঁশিয়ারি দেন।শিক্ষার্থীদের অবরোধের ফলে ঢাকা- মাওয়া মহাসড়কে যান চলাচল সম্পূর্ণভাবে বন্ধ হয়ে যায়।

পরে সকাল ১০ টার দিকে প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল সাধারণ শিক্ষার্থীদেরকে আশ্বস্ত করেন যে র‍্যাব-১০ এর প্রতিনিধি দল জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে এসে প্রেস কনফারেন্স এর মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের নিকট ক্ষমা প্রার্থনা করবেন। যার ফলে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা তাদের অবরোধ তুলে নেন।


উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বহনকারী মিরপুরগামী উত্তরণ -২ বাসটি সায়দাবাদ মেয়র মোহাম্মদ হানিফ ফ্লাইওভার এর নিচে আসার পর সেখানে বাসের সামনে র‍্যাব-১০ এর একটি গাড়ি (ঢাকা মেট্রো চ-৫৩২২৩৭) রাস্তার মাঝখানে দাঁড় করিয়ে কিছু লোক নামাতে থাকে।

সেসময় বাসের শিক্ষার্থীরা রাস্তার মাঝখান থেকে র‍্যাবের গাড়ি সরানোর জন্য বললে র‍্যাব সদস্যদের সাথে শিক্ষার্থীদের কথা কাটাকাটি শুরু হয়।

কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে র‍্যাব সদস্যরা শিক্ষার্থীদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। তাদের হামলায় ৭ জন শিক্ষার্থী আহত হয় যাদের মধ্যে একজনের অবস্থা ছিল গুরুতর।

পরে বাস থেকে বাকি সকল শিক্ষার্থীরা নেমে আসলে র‍্যাবের গাড়িটি দ্রুত সে জায়গা প্রস্থান করে। আহত শিক্ষার্থীদেরকে দ্রুত ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছিল।

নিউজ ঢাকা

আরো পড়ুন,৩৫,৩৬,৩৭ নং ওয়ার্ড সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর আনোয়ারা বেগম রেশমার ভোট চেয়ে প্রচারণা

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

ইবি অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ নাছির উদ্দীনের নতুন বই

পল্লব আহমেদ সিয়াম, ইবি প্রতিনিধি: ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের আল ফিকহ এন্ড লিগ্যাল স্টাডিজ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!