শরবত

শরবত তেষ্টা মেটায়, কিন্তু নিরাপদ কি ?

তাপমাত্রা ৩০ ডিগ্রী ছুঁই ছুঁই। গ্রীষ্মে চলছে তীব্র তাপদাহ। বৈশাখের ছাতি ফাঁটা রোদে প্রাণ ওষ্ঠাগত প্রায়। তবু জীবিকা ও কাজের প্রয়োজনে আমাদের বাইরে বের হতেই হয়। ঘর থেকে বের হলেই গরমে ঘেমে-নেয়ে নাজেহাল। সাময়িক প্রশান্তি আর তৃষ্ণা মেটাতে  মানুষ ঝুঁকছে ফুটপাতের অস্বাস্থ্যকর শরবত এর দোকানে। রাস্তার পাশের অস্থায়ী কিংবা ভ্রাম্যমাণ বরফ কুচি ও কাটা ফলের শরবত এর  দোকানগুলোতে ভিড় চোখে পড়ার মতো।

ব্যস্ততম রাজধানীতে বের হলেই সড়কের মোড়ে, মার্কেটের সামনে, রাস্তার পাশে চোখে পড়বে, সারি করে দাঁড়ানো লেবু পানি শরবত ।

গরম বেশি পড়লে বেড়ে যায় এসব খাবারের   চাহিদা। অস্বাস্থ্যকর জেনেও পথের এসব খাবারে দৈনিক হাজার হাজার মানুষ তাদের তৃষ্ণা ও চাহিদা মেটাচ্ছে।

কেরানীগঞ্জ টু মিরপুর (দিশারী) বাস থেকে গুলিস্তানের গোলাপশাহ মাজারের বামে নেমে হন্তদন্ত হয়ে আখের রসের ভ্যানের সামনে দাঁড়ালেন এক ব্যক্তি, ঢক ঢক করে খেয়ে নিলেন দুই গ্লাস। হাসান নামের ঐ ব্যক্তি জানান, অস্বাস্থ্যকর জেনেও গরম থেকে বাঁচতে তিনি প্রায়ই রাস্তার পানীয় পান করেন। বরফের কুচি দেওয়া শরবত খেলে পুরো শরীর জুড়ে প্রশান্তি নামে।বরফ কুচি ও বিট লবণ মেশানো লেবুর শরবতের দোকানেও গরমে অস্থির অনেকেই স্বস্তি খুঁজতে ভিড় করেছেন।

জিঞ্জিরা ফেরিঘাটের লেবুর শরবত বিক্রেতা বলেন, এখন অনেক কাস্টমার। মাঝে মাঝে বেইচা কুল পাওন যায় না। আমার লেবুর পানি একশ পার্সেন্ট ভালো। ভালো কারখানা থেকে বরফ আনা,এছাড়া আমি কোন উল্টপাল্টা জিনিস আমার শরবতে মিশাই নাই। তাই এই শরবতে কোনো রকমের ক্ষতি হইবো না।

বিভিন্ন সূত্রমতে, রাস্তার এসব পানীয় ও শরবতের নামে আমরা যা পান করছি তার বেশিরভাগই প্রিজারভেটিভ এবং তার সাথে কার্বন ডাই অক্সাইডযুক্ত হওয়ায় শরীরের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।যে বরফ ব্যবহার করা হয় তা মাছের আড়ৎ, মর্গে ব্যবহার করা হয়। এ কারণে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরি হয় এ বরফ। এসব বরফে মেশানো থাকে কেমিক্যাল ও ইউরিয়া। ফলে ঠাণ্ডার পরশ পেয়ে সাময়িক স্বস্তি মিললেও অজান্তেই শরীরে যাচ্ছে জন্ডিস , ডাইরিয়াসহ অন্য রোগের জীবাণু।

তাই সাময়িক তৃপ্তি দিলেও সচেতনতার সঙ্গে এ ধরণের ফুটপাত এর পানীয় এড়িয়ে চলা উচিত বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞ ডাক্তাররা।।

 

শাহাদাৎ হুসাইন

নিউজঢাকা টুয়েন্টিফোর

2017-05-15; 02.53.00 PM bdST

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

দৌলতদিয়ায় যৌনকর্মীদের পাশে জেসিআই ঢাকা ইয়াং

মোঃ মাসুদ রাজবাড়ী জেলার দৌলতদিয়ার যৌনপল্লীতে যৌন কর্মীদের মাঝে প্রয়োজনীয় খাদ্যদ্রব্য এবং স্বাস্থ্য ও সুরক্ষা …

One comment

  1. জাফর আহমেদ

    টাইটেল এতো ঘোরানো প্যাচানো কেন ?

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!