ফায়ার সার্ভিসের

কাঁদছে ফায়ার সার্ভিস, কাঁদছে সোহেলের সহকর্মীরা

ফায়ার সার্ভিসের গাড়িগুলোর ভেতরে সবসময় ফায়ারম্যানদের একসেট করে কাপড় আর যন্ত্রপাতি থাকে। আগুন লাগলেই স্টেশনে অ্যালার্ম বাজবে। অ্যালার্মের ৩০ সেকেন্ডের মধ্যে দায়িত্বরত ফায়ারম্যানরা যে যেখানে থাকবে গাড়িতে চড়ে ঘটনাস্থলের উদ্দেশে বের হতে হবে।

যদি কোনো ফায়ারম্যান নামাজ পড়তে চান, তাহলে তাকে দাঁড়াতে হবে নামাজের শেষ কাতারে। যাতে অ্যালার্মের শব্দ শুনে নামাজ ছেড়ে দৌড়ে গাড়িতে উঠতে পারেন।

সহকর্মীদের ভাষায় তেমনি একজন ছিলেন ফায়ারম্যান সোহেল রানা। একজন নম্র, সাহসী, কর্তব্যপরায়ণ অফিসার হিসেবেই ফায়ার সার্ভিসে সবাই তাকে জানতো। ডিউটির সময় ফায়ার ইউনিট গাড়ির আশপাশেই থাকতেন তিনি।

২০১৫ সালে মুন্সিগঞ্জের কমলাঘাট নদী ফায়ার স্টেশনে দায়িত্বপালনের মাধ্যমে কর্মজীবনের শুরু সোহেল রানার। এর কয়েক মাস পরেই বদলি হন কুর্মিটোলা ফায়ার স্টেশনে।

গত ২৮ মার্চ বনানীর এফআর টাওয়ারে আগুন লাগার পর উদ্ধার অভিযানে যোগ দিয়েছিলেন রানা। ২৩ তলা ওই ভবনে আটকা পড়া মানুষদের ল্যাডারের মাধ্যমে নামাচ্ছিলেন তিনি।

সোহেল যখন ৪-৫ জন আটকে পড়া ব্যক্তিকে উদ্ধার করে নিচে নামাতে চান তখন উদ্ধারকারী ল্যাডারটি ওভারলোড দেখাচ্ছিল। ওভারলোড হলে সাধারণত সিঁড়ি নিচে নামে না, স্বয়ংক্রিয়ভাবে লক হয়ে যায়। তাই ল্যাডারের ওজন কমাতে একপর্যায়ে সোহেল ল্যাডার থেকে বেয়ে নিচে নামছিলেন। এরপর ল্যাডারটির ওজন কমে যাওয়ায় সেটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে চালু হয়ে যায়। এরপরই ঘটে যায় সেই ঘটনাটি যা তার জীবনের আলো নিভিয়ে দিল। ল্যাডারের ভেতরে সোহেলের একটি পা ঢুকে যায়। এ ছাড়া তার শরীরের সেফটি বেল্টটি ল্যাডারে আটকে পেটে প্রচণ্ড চাপ লাগে। এরপর থেকেই সংজ্ঞাহীন হন সোহেল।

দুর্ঘটনার পরপরই সোহেল রানাকে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়। সেখানে প্রতিদিন চার ব্যাগ রক্ত দেয়া হলেও প্রত্যাশা অনুযায়ী উন্নতি হচ্ছিল না। পেটের ক্ষতের কারণে সমস্যা হচ্ছিল রানার।

সে কারণে সিএমএইচের চিকিৎসকদের পরামর্শে গত শুক্রবার (৫ এপ্রিল) রানাকে পাঠানো হয় সিঙ্গাপুরে। তার দেখাশোনা করার জন্য ফতুল্লা ফায়ার স্টেশনের সিনিয়র স্টেশন অফিসার রায়হানুল আশরাফকেও তার সঙ্গে পাঠানো হয়।

সিঙ্গাপুরের একটি হাসপাতালে সোমবার স্থানীয় সময় ভোর ৪টা ১৭ মিনিটে (বাংলাদেশ সময় রাত ২টা ১৭ মিনিট) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

২৮ মার্চ বনানীর কামাল আতাতুর্ক এভিনিউয়ের পাশের ১৭ নম্বর সড়কে ফারুক রূপায়ন (এফআর) টাওয়ারের ভয়াবহ আগুনে ঘটনাস্থলে ২৫ জন ও হাসপাতালে ১ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরও ৭৩ জন আহত হয়েছেন। ফারুকের নিহতের মাধ্যমে এফআর টাওয়ার অগ্নিকাণ্ডে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ২৭ জনে দাঁড়াল।

নিউজ ঢাকা

আরো পড়ুন,ইটাব এর নৌ-ভ্রমণ প্রীতি সম্মেলন ২০২০ অনুষ্ঠিত

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

কুবি প্রেস ক্লাবের দায়িত্ব হস্তান্তর অনুষ্ঠান ও শহীদ মিনারে শ্রদ্ধাঞ্জলি

নাবিলা সাজেদ এষা,কুবি প্রতিনিধি:  কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় (কুবি) প্রেস ক্লাবের ২০২১-২২ বর্ষের কার্যনির্বাহী কমিটির দায়িত্ব হস্তান্তর …

4 comments

  1. It’s truly a great and helpful piece of info. I am satisfied that
    you shared this useful info with us. Please keep us up to date
    like this. Thank you for sharing.

  2. After I originally left a comment I appear to have clicked on the -Notify me when new comments are added- checkbox and from now on whenever a
    comment is added I receive 4 emails with the exact
    same comment. Perhaps there is a means you can remove me from that
    service? Thanks!

  3. Great post. I used to be checking constantly this weblog and I am impressed!
    Extremely useful information specifically the remaining phase 🙂
    I take care of such information much. I was looking for
    this certain info for a long time. Thanks and good luck.

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!