অভিনেতা

জনপ্রিয় অভিনেতা টেলি সামাদ, আমাদের মাঝে আর নেই।

পৃথিবীর মায়া কাটিয়ে না ফেরার দেশে পাড়ি জমালেন ঢাকাই সিনেমার কিংবদন্তি অভিনেতা টেলি সামাদ। আজ শনিবার, ৬ এপ্রিল বেলা ১টা ৩০ মিনিটে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেন তার মেয়ে সোহেলা সামাদ কাকলী।

এদিকে শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান জাগো নিউজকে বলেন, দীর্ঘদিন ধরেই নানা অসুখে ভুগছিলেন বরেণ্য এই অভিনেতা। গতকাল শুক্রবার শরীর বেশি খারাপ হলে রাত ১টার দিকে তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। এখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ তার মৃত্যু হয়েছে। তার মৃত্যু আমাদের শোকে স্তব্ধ  করে দিয়েছে। চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রির এক উজ্জ্বল নক্ষত্র ছিলেন টেলি সামাদ।

তার বিদেহি আত্মার জন্য দোয়া কামনা করে জায়েদ খান বলেন, অভিনেতা টেলি সামাদ স্কয়ার হাসপাতালে ডা. প্রতীক দেওয়ানের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

প্রসঙ্গত, ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেতা টেলি সামাদকে এর আগে ২০১৭ সালে যুক্তরাষ্ট্রে বাইপাস সার্জারি করা হয়। এ ছাড়া গত বছরের ২০ অক্টোবর তার বাঁ পায়ের বৃদ্ধাঙ্গুলিতেও জরুরি অস্ত্রোপচার করা হয়েছিল।

সর্বশেষ গত বছরের ৪ ডিসেম্বর অসুস্থ হয়ে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন টেলি সামাদ। তখন চিকিৎসক বলেছিলেন, টেলি সামাদের খাদ্যনালীতে সমস্যা রয়েছে। শুধু তাই নয়, তার বুকে ইনফেকশন ছিল, ডায়াবেটিস ছিল। রক্তের প্লাটিলেটও কমে যাচ্ছিলো বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

সেখানে ১৬ দিন চিকিৎসা নেওয়ার পর বাসায় ফিরে আবার অসুস্থ হয়ে পড়েন চলচ্চিত্রের এক সময়কার দাপুটে অভিনেতা। সেজন্য তাকে গত ১৯ ডিসেম্বর রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়। সে যাত্রায়ও সুস্থ হয়ে বাসায় ফেরেন তিনি।

কিন্তু হঠাৎ করেই কয়েক দিন আগে আবারও অসুস্থ হয়ে পড়েন টেলি সামাদ। পরে গতকাল অবস্থার অবনতি হলে তাকে স্কয়ার হাসপাতালে আনা হয়। এখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় জীবনের অবসান হলো তার।

জনপ্রিয় এই অভিনেতার মৃত্যুতে চলচ্চিত্রসহ সংস্কৃতি অঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

প্রসঙ্গত, ১৯৪৫ সালের ৮ জানুয়ারি ঢাকার বিক্রমপুরে জন্মগ্রহণ করেন টেলি সামাদ। টিভি, চলচ্চিত্র ও মঞ্চে অভিনয়ের পাশাপাশি প্রযোজনা এবং গানের জগতেও তার অবাদ বিচরণ। ‘মনা পাগলা’ নামের একটি ছবির সংগীত পরিচালনাও করেছেন তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলার তুখোড় ছাত্র টেলি সামাদের ছিল অভিনয়ের নেশা। সেই নেশার টানেই ১৯৭৩ সালে ‘কার বউ’ সিনেমা দিয়ে চলচ্চিত্রে পা রাখেন। চার দশকে পাঁচ শতাধিক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি।

তার অভিনীত সর্বশেষ ছবি ‘জিরো ডিগ্রি’ মুক্তি পায় ২০১৫ সালে। শেষ জীবনে চলচ্চিত্র থেকে দূরে ছিলেন তিনি। সারাদিন বাসায়ই থাকেন। টিভি দেখতেন, ছবি আঁকতেন।

ব্যক্তিজীবনে এক মেয়ে ও এক ছেলের বাবা টেলি সামাদ।

নিউজ ঢাকা

আরো পড়ুন,পদ্মায় নৌকাডুবির ঘটনায় নিখোঁজ নববধূ’র লাশ উদ্ধার

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

ইউটিউব এ সফলতার দ্বারপ্রান্ত অতিক্রম করল লাভবার্ড কাপল

মোঃএনামুল হক বাবু, বিনোদন প্রতিবেদক টিকটকে ফেমাস কাপল লাভবার্ড আইডিটির সাথে কমবেশি আমরা সবাই পরিচিত। …

10 comments

  1. When someone writes an article he/she maintains the image of a user in his/her mind
    that how a user can be aware of it. Thus that’s why this paragraph is great.
    Thanks!

  2. Do you mind if I quote a few of your articles as long as I
    provide credit and sources back to your blog?
    My website is in the exact same niche as yours and my visitors would definitely benefit from some of the information you present
    here. Please let me know if this ok with you.
    Thank you!

    My blog: Joey

  3. you’re truly a good webmaster. The site loading pace is amazing.
    It sort of feels that you’re doing any distinctive trick.
    In addition, The contents are masterwork. you’ve done a wonderful task on this topic!

    my web page – judi-casino-online-terpercaya.blogspot.com

  4. Terrific article! That is the kind of information that are supposed to be
    shared across the internet. Disgrace on Google for now
    not positioning this post upper! Come on over and seek advice from my
    web site . Thank you =)

    Also visit my webpage; mesin slot

  5. Today, I went to the beach front with my children. I found a sea shell and gave it to my 4 year old daughter and said “You can hear the ocean if you put this to your ear.” She put the
    shell to her ear and screamed. There was a hermit crab
    inside and it pinched her ear. She never wants to go back!
    LoL I know this is totally off topic but I had to
    tell someone!

    Have a look at my web-site; Louisa

  6. Hello, I enjoy reading all of your post. I like to write a little comment to support you.

    Feel free to visit my page Laurence

  7. I used to be suggested this website through my cousin. I’m
    now not positive whether or not this submit is written by
    him as nobody else understand such distinct about my problem.
    You are amazing! Thanks!

    My web-site Karen

  8. I have learn a few just right stuff here. Certainly price bookmarking for revisiting.
    I surprise how much effort you put to make one of these excellent informative
    site.

    my blog post: Kieran

  9. Fastidious replies in return of this query with genuine arguments and telling all
    on the topic of that.

    Here is my web page – win88grup.blogspot.com

  10. Wow, amazing blog format! How long have you been blogging for?
    you made blogging glance easy. The whole look of your
    web site is wonderful, as neatly as the content!

    Here is my blog … Daftar Win88 (Gamewin88Daftar.Blogspot.Com)

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!