কেরনীগঞ্জে নির্মানাধীন বিদ্যুতের সাবস্টেশনে অগ্নিকান্ড , প্রায় ৫০ কোটি টাকা ক্ষয়ক্ষতি

কেরানীগঞ্জে পাওয়ার গ্রীড অব বাংলাদেশ ২৩০/১৩২/৩৩ কেভি জি আই এস এর নির্মানাধীন সাবস্টেশনের অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। বুধবার রাত পোনে এগারটার দিকে কেরানীগঞ্জ মডেল থানাধীন শাক্তা ইউনিনের মালঞ্চ এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। টানা তিন ঘন্টা ফায়ার সার্র্ভিসের ১০টি ইউনিট কাজ চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। অগ্নিকান্ডের ঘটনায় প্রায় ৫০ কোটি টাকা ক্ষতি সাধান হয়েছে বলে একটি সূত্রে জানান।

জানা য়ায়, কেরানীগঞ্জের শাক্তা ইউনিয়নের মালঞ্চ এলাকায় পাওয়ার গ্রীড অব বাংলাদেশ ২৩০/১৩২/৩৩ কেভি জিআইএস এর নির্মান কাজ চলছিল। সেখান থেকে বিদ্যুৎ সঞ্চালনের জন্য তিনটি ট্রান্সফর্মা বসানো হয়। কাজের শেষ পর্যায়ে এসে বিদ্যুৎ সঞ্চালনের জন্য কয়েকদিন ধরে পরীক্ষা মূলক প্রথম ট্রান্সফর্মাটি চালু করেন। বুধবার রাতে অপর দু,টি ট্রান্সফর্মা চালু করতে গেলে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এ অগ্নিকান্ডে পাওয়ার গ্রীডের তিনটি ট্রান্সফর্মা পুড়ে যায়। খবর পেয়ে থানা প্রশসান ও কেরানীগঞ্জ, সদরঘাট, পোস্তগোলা সহ ফায়ার সার্ভিসের ১০টি ইউনিট উপিস্থিত হয়ে প্রায় তিন ঘন্টা কাজ চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনেন।

 

পাওয়ার গ্রীড অব বাংলাদেশ ২৩০/১৩২/৩৩ কেভি জিআইএস এর প্রোজেক্ট পরিচালক মোঃ সহিদ হোসেন জানান, বুধবার রাতে গ্রীডের ভীতর একটি অনাকাক্সিখত ঘটনায় অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। কিভাবে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটছে তা জানা যায়নি। এ জন্য বিদ্যুৎ মন্ত্রনালয়,পাওয়ার গ্রীড (পিজিসি) ও স্থানীয়ভাবে উপজেলা প্রশাসন থেকে আলাদা আলাদা তিনটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কত টাকার মালামাল ক্ষতি সাধান হয়েছে তা এখন বলা যাচ্ছে না।
কেরানীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস সুত্রে জানাযায়, গ্রীডের ট্রান্সফর্মার বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিটে অগ্নিকান্ডের সুত্রপাত ঘটে। বুধবার রাত আনুমানিক সোয়া ১০টার সময় এ অগ্নি কান্ডের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে কেরানীগঞ্জ, পোস্তগোলা, সদরঘাট, মোহাম্মদপুর ও সদর ফায়ার স্টেশনের মোট ১০ ইউনিট প্র্য়া তিন ঘন্টা কাজ করে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনলেও আমাদের কেরানীগঞ্জর ইউনিটটি এখনো কাজ করে যাচ্ছে। ট্রান্সফর্মার আগুন নিয়ন্ত্রনে আসলেও এর হীট (তাপ) থেকে যায় অনেকক্ষন। তাই আমরা এর তাপ কমানোর জন্য এখানো কাজ করে যাচ্ছি। এ ব্যাপারে ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ক্ষতির পরিমান তদন্তধীন রয়েছে।

এ ব্যাপারে কেরানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহে এলিদ মইনুল আমিন এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ঘটনার খবর পাওয়ার সাথে সাথে আমি ঘটনাস্থলে আসি। ঘটনাস্থলে পৌছে আসি বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী ও জেলা প্রশাসনকে বিষটি জানাই।। এ ঘটনার জন্য আমার উপজেলার পক্ষ থেকে একটি তদন্ত টিম গঠন করেছি। #

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

ঢাকা জেলা পুলিশ

ঢাকা জেলা পুলিশের উদ্দ্যোগে দুস্থ ও কর্মহীন মানুষের মাঝে ঈদ উপহার বিতরন

ঢাকার কেরানীগঞ্জে পবিত্র ঈদ উল আযহা উপলক্ষে দুস্থ ও কর্মহীন মানুষের মাঝে ঈদ উপহার হিসাবে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!