সংবাদিক আবু জাফরের মুক্তির দাবিতে কেরানীগঞ্জ প্রেস ক্লাবের মানব বন্ধন

দৈনিক যুগান্তর কেরানীগঞ্জ প্রতিনিধি আবু জাফরের মুক্তির দাবিতে মানব বন্ধন কর্মসুচী পালন করা হয়েছে। কেরানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের উদ্যোগে আজ শনিবার সকাল ১১টায় জিনজিরাস্থ কেরনীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে এই মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানব বন্ধন কর্মসুচীতে কর্মসূচিতে কেরানীগঞ্জে কর্মরত সকল প্রকার প্রিন্ট,ইলেকট্রনিক ও অনলাইলান মিডিয়ার প্রতিনিধিরা এ মামলার প্রবিাদ ও নিন্দা জ্ঞাপন করেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন কেরানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি শফিক চৌধুরী, আহবায়ক মোঃ আব্দুল গনি. আহবায়ক কমিটির সদস্য কালিম সান্টু, রাকিব হোসেন, হাজী মোস্তফা কামাল, সাবেক সভাপতি মোঃ সাইফুল ইসলাম, হাজী সালাউদ্দিন মিয়া, সাবেক সাধারন সম্পাদক আলতাফ হোসেন মিন্টু, মোহাম্মদ রায়হান খান, সাংবাদিক এইচ এম আমীন, জাহাঙ্গীর হোসেন ঝনু, ইকবাল হোসেন রতন, মোঃ ইউসুফ আলী, মো.আলমগীর হোসেন, মিয়া আব্দুল হান্নান, মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন, শেখ শামীম উদ্দিন, লিটন মাহমুদ, এরশাদ হোসেন, নাজিম উদ্দিন ইমন, আরিফ ও আবু জাফরের পরিবারের সদস্য প্রমুখ।
মানব বন্ধন কর্মসুচীতে বক্তব্য দেন কেরানীগঞ্জ প্রেস ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মোঃ শফিক চৌধুরী। তিনি বলেন, কেরানীগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সবেক সাধারন সম্পাদক দৈনিক যুগান্তর পত্রিকার কেরানীগঞ্জ প্রতিনিধি আবু জাফরসহ, সভার, ধামরাই, নরাবগঞ্জ ও গোপালগঞ্জ থানা যুগান্তর পত্রিকার প্রতিনিধিদের বিরুদ্ধে আনিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে(আইসটি) দায়ের করা মামলাটি দ্রুত প্রত্যাহার করে তার মুক্তির দাবিসহ আইসিটি আইনের কালোধারাগুলো বাতিল করার দাবী জানানো হয়।
উল্লেখ্যঃ গত বুধবার(১৯ফেব্রুয়ারী) ঢাকার নবাবগঞ্জ থানার ওসি মোস্তফা কামালের বিরুদ্ধে দোহার থানায় দৈনিক যুগান্তরের কেরানীগঞ্জ প্রতিনিধি আবু জাফরসহ পাঁচ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে(আইসটি) একটি মামলা হয়। এই মামলায় আবু জাফরকে ওই দিন দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে নেন দোহার থানা পুলিশ। পরের দিন বুধবার দোহার থানা পুলিশ তাকে আদালতে প্রেরন করলে আদালত তার জামিন আবেদন না মুঞ্জুর করে তাকে কারাগারে প্রেরন করেন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

কেরানীগঞ্জে চকলেটের প্রলোভন দেখিয়ে শিশু ধর্ষণ চেষ্টা, অভিযুক্ত আটক

ঢাকার কেরানীগঞ্জের রোহিতপুর ইউনিয়নের সোনাকান্দা গ্রামে টাকা ও চকলেটের প্রলোভন দেখিয়ে ৮ বছরের এক শিশুকে …

2 comments

  1. Awesome issues here. I’m very glad to peer your post.
    Thank you so much and I am taking a look ahead to contact you.
    Will you kindly drop me a mail?

  2. An intriguing discussion is worth comment.
    I think that you should write more on this subject matter, it may not be a taboo subject but
    generally folks don’t talk about such subjects. To the next!
    Kind regards!!

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!