আমরা স্বপ্ন দেখি সুন্দর আগামীর

স্বপ্ন বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত তোমাকে স্বপ্ন দেখতে হবে। আর স্বপ্ন সেটা নয় যেটা তুমি ঘুমিয়ে দেখো, স্বপ্ন হলো সেটা যেটা পূরণের প্রত্যাশা তোমাকে ঘুমোতে দেয় না”।

স্বপ্ন নিয়ে স্যার এ.পি.জে আবুল কালাম এর বিখ্যাত উক্তিটি, আমাদের স্বপ্নবাজ তরুণের মূল উদ্দীপনা।

এই কথাই আমাদের কাজের শক্তি।আমরা স্বপ্নবাজ তরুণরা কিছু সুন্দর স্বপ্ন দেখি। স্যার এ পি জে কালাম আরো বলেছেন,

“স্বপ্নকে সত্যি করতে হলে প্রথমে তোমাকে স্বপ্ন দেখতে হবে।”

আমরা স্বপ্নবাজেরা তাই সুন্দর স্বপ্ন দেখি। আমরা আমাদের দেশকে দেখতে চাই ক্ষুধা,দারিদ্রমুক্ত শিক্ষিত জাতি হিসেবে। আমাদের স্বপ্নটা অনেক বড়। যদিও বর্তমানে আমাদের দেশের যে প্রেক্ষাপট তাতে এসব স্বপ্ন বাস্তবায়ন করা অনেক কঠিন,তবুও আমরা চেষ্টা করে যেতে চাই।কাউকে না কাউকে তো দেশের জন্য এগিয়ে আসতেই হবে। অনেকেই তো দেশের জন্য কাজ করে সেখানে আমরা ও না হয় কিছু ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কাজ করলাম।

এ উদ্যেশ্য নিয়েই ২০১৫ সালে যাত্রা শুরু হয় আমাদের । তারপর হাটি হাটি পা পা করে আজ আমরা অনেকখানিই এগিয়ে এসেছি বলা যায়। যেখানে শুরু করেছিলাম প্রায় ৫ জন মিলে,এখন আমরা ১০ জন এর একটি পরিবার। মাত্র ১০ জন নিয়েই আমরা বড় একটা ঝুঁকি নিয়েছি। সকলের সহযোগিতায় ১৫০ জন মানুষের মুখে হাঁসি ফোটানোর কাজ হাতে নিয়েছিলাম যে কাজে আমরা সফল। এই রকম সফলতা পাওয়ার কথা ভাবতেই পারি নি আমরা। যেহেতু এবার আমরা টানা ২ বারের মত সফল হয়েছি, ইনশাআল্লাহ সামনে আমরা আরো বড় ব্ড় প্রজেক্ট হাতে নিবো।।

২০১৬ এর আমাদের ঈদ প্রজেক্ট গরিব শিশুদের সাথে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগিতে আমরা সফল হয়েছি। বেশ কিছু দিন আগে আমরা কেরানীগঞ্জে বিনা মূল্যে রক্তের গ্রুপ টেষ্ট করেছি। এর উদ্দেশ্য ছিলো সমাজে অনেক দরিদ্র মানুষ আছে যারা টাকার অভাবে রক্ত কিনতে পারে না,তাই আমাদের এই কার্যক্রমের দ্বারা যদি কোন ভাই বা বোন স্বেচ্ছায় রক্ত দিতে চায় তবে আমরা স্বপ্নবাজ তরুনসহ অসহায় মানুষ যে রক্ত পাবে সে উপকারি হবেন।

গত রমজান ঈদে আমরা ১৫০ জনের মুখে হাসি ফোটাতে সক্ষম হয়েছি। ঈদের পর আমরা ওই শিশুদের পড়াশুনার ব্যাবস্থা করবো। তাদের জন্য আমরা ফ্রি শিক্ষার ব্যাবস্থা করবো। ফ্রি বই,কলম ইত্যাদি আমরাই তাদের সরবরাহ করবো। আমাদের সংগঠন এর নিজস্ব ডাক্তার রয়েছে। তাদের দ্বারা গরিবদের ফ্রি চিকিৎসার ব্যাবস্থা করার পরিকল্পনা রয়েছে আমাদের। আমরা আমাদের সাধ্য অনুযায়ী আমাদের আশেপাশের গরিবদের সহযোগিতা করবো। ঈদের পর পরই আমরা আমাদের পরিবারে নতুন সদস্য সংগ্রহের কাজ শুরু করেছি এখন পর্যন্ত আমাদের সদস্য প্রায় ৫০০ এর বেশী।

এই সকল ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র লক্ষ্য নিয়েই এগিয়ে যাচ্ছে একঝাক তরুণ-তরুণী। তারা স্বপ্ন দেখে দেশের জন্য ভালো কিছু করার।তাদের নিয়েই গঠিত টিম স্বপ্নবাজ তরুণ। টিম স্বপ্নবাজ তরুণের স্লোগান,

“আমরা স্বপ্ন দেখি সুন্দর আগামীর।”

কথার ফাঁকেফাঁকে এভাবেই নিজেদের কার্যক্রম এর কথা তুলে ধরছিলেন স্বপ্নবাজ তরুনের এর সভাপতি শুভ আহম্মেদ এবং সহ-সভাপতি অরিন মাহমুদ অপু। পাশাপাশি তাদের উদ্যেশ্য পূরণে সমাজের ধর্নাঢ্য ব্যক্তিদের এগিয়ে আসার আহব্বান জানান তারা ।

 

এছাড়া স্বপ্নবাজ এই দুই তরুন আরো বলেন,

“যদি আমাদের কার্যক্রম সরকারের দৃষ্টি আকর্ষন করে তাহলে আশা করি দেশের সকল অঞ্চলে কার্যক্রম চালিয়ে যেতে সক্ষম হবো আমরা”।।

 

নাফিউল ইসলাম অপু,
নিউজঢাকা টুয়েন্টিফোর
Published: 2017-05-13 6:10:00 BdST

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

Check Also

রক্তের বন্ধনে আলো ছড়াচ্ছে ‘ব্লাড ডোনার্স ফ্যামিলি

জহিরুল ইসলাম মিলন, টাঙ্গাইল (ধনবাড়ী) প্রতিনিধিঃ- টাঙ্গাইলের ধনবাড়ীতে গতবছর করোনার প্রভাব যখন বেড়ে বাংলাদেশ সরকার …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!