৭ দিনেও উদ্ধার হয় নি স্বর্নালংকার ; হতাশ স্বর্ন ব্যবসায়ীরা

গত ১৭ জুন বুধবার ঢাকার দক্ষিন কেরানীগঞ্জের আব্দুল্লাহপুর বাজার এলাকায়  নিউ আল আমিন জুয়েলার্সে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। ডাকাতরা দিন দুপুরে দোকানের মালিক স্বপন মন্ডলের পায়ে গুলি করে ১৬০ ভরি স্বর্নালংকার লুটে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় দোকান মালিক স্বপন মন্ডলের ছোট ভাই বিপ্লব মন্ডল বাদী হয়ে ঐদিন রাত ৯.৩০ এ অজ্ঞাত ৬ জনকে আসামী করে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ৭ দিন পার হয়ে গেলেও ডাকাতি হওয়া স্বর্নালংকার উদ্ধার এবং জড়িত কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। এ নিয়ে হতাশার মধ্যে রয়েছে আব্দুল্লাপুর এলাকার স্বর্ন ব্যবসায়ীরা।

মামলার বাদী ও স্বপন মন্ডলের ছোট ভাই বিপ্লব মন্ডল দেশ রূপান্তরকে জানান, তার ভাই আহত স্বপন মন্ডল এখোনো ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। আরো ৪/৫ দিন পরে অপারেশন হবে। শরীরে ঘা রয়েছে ঘা টা না শুকালে অপারেশন করা যাচ্ছে না।  ঘা শুকালে পরে অপারেশন করে পা থেকে গুলি বের করা হবে। হাত ভেঙে গেছে সেটাও প্লাষ্টার করে দেয়া হবে।

বিপ্লব মন্ডল আরো জানান, আমরা খুব মানসিক অশান্তির মধ্যে আছি। একদিকে ভাই হাসপাতালে অসুস্থ অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছে। অন্য দিকে ৭ দিন হয়ে গেছে কিন্তু এ ঘটনায় কেও গ্রেপ্তার হয় নি, আমাদের দোকানের লুণ্ঠিত মালামাল ও উদ্ধার করা সম্ভব হয় নি এখোনো।

এদিকে মঙ্গলবার আব্দুল্লাহপুর এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, আল আমিন জুয়েলার্স এখোনো বন্ধ অবস্থাতেই আছে। ডাকাতির ঘটনার রেষ এখোনো কাটে নি এলাকাবাসীর মধ্যে।  কম বেশি সব দোকানীর মুখেই এখোনো ডাকাতির ঘটনার আলোচনা চলছে। বিশেষ করে স্বর্ন ব্যবসায়ীরা এখোনো আতঙ্কের মধ্যে রয়েছেন। ৭ দিন পার হয়ে গেলেও ডাকাতির ঘটনার কোন গ্রেপ্তার বা মালামাল উদ্ধার না হওয়ায় হতাশার মধ্যে রয়েছেন তারা।

আলামীন জুয়েলার্সের পাশেই অবস্থিত আবির জুয়েলার্স, আবির জুয়েলার্সের মালিক ঝন্টু ঘোষ জানান, ঘটনার দিন আমি আমার মাকে নিয়ে হাসপাতালে ছিলাম। আমার ভাতিজা চন্দন একা ছিল দোকানে, বোমার শব্দ পেয়ে ও উকি মেরে যখন দেখে এই অবস্থা তখন ও ভিতর থেকে সাথে সাথে সাটার ফালিয়ে দেয় । এবং কান্না করতে করতে আমাকে কল দেয়। আমি ওর কল পেয়ে হাসপাতাল থেকে দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে এই অবস্থা দেখতে পাই। তিনি আরো জানান, আমরা এখোনো আতঙ্কের মধ্যে এবং নিরাপত্তাহীনতার মাঝে রয়েছি। আজকে তার দোকানে হয়েছে , কালকে যে আমার দোকানে হবে না, তার তো কোন গ্যারান্টি নাই। পুলিশ যদি দ্রুত আসামীদের গ্রেপ্তার করতে পারে তা হলে হয়তো আমরা কিছুটা স্বস্থি পেতাম।

আব্দুল্লাহপুর বাজার স্বর্ন ব্যবসায়ী সমিতির সাধারন সম্পাদক ভোলা কুন্ড বলেন, আমাদের আব্দুল্লাহপুর বাজার স্বর্ন ব্যবসায়ী সমিতিতে ৩০ জন সদস্য রয়েছে। এ ঘটনায় আমরা সবাই চিন্তিত আতঙ্কিত। আহত স্বপন, আমাদের স্বর্ন ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি। সভাপতির দোকানেই এই ঘটনা ঘটায় আমরা ভেঙে পড়েছি। তিনি সুস্থ হয়ে আসলে আমরা আমাদের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে দ্রুতই প্রশাসনের সাথে বসবো। কারন ঐ দিনের ঘটনায় স্পষ্ট পরিষ্কার আমরা চরম নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে আছি। অতিস্বত্তর ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেপ্তারের দাবী জানাচ্ছি।

দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ শাহ জামান বলেন, ডাকাতির ঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। আশা করছি দ্রুত সময়ের মধ্যে তাদের গ্রেপ্তার করতে আমরা সক্ষম হবো।

ঢাকা জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (কেরানীগঞ্জ সার্কেল) শাহবুদ্দীন কবির  জানান, ডাকাতির ঘটনায় মালামাল উদ্ধারে এবং ডাকাতদের গ্রেপ্তারে আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়েছি। ইতিমধ্যে আমরা ঘটনা স্থল কয়েকবার পরিদর্শন করেছি। বেশ কিছু জায়গায় অভিযান ও পরিচালনা করেছি। অণেক তাড়াতাড়িই আসামীরা গ্রেপ্তার হবে। #

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে [sharethis-inline-buttons]

Check Also

কেরানীগঞ্জে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়ার অভিযোগ

কেরানীগঞ্জে যৌতুকের দাবিতে নীলা আক্তার নামে এক গৃহবধূকে দুই শিশু সন্তানসহ বাড়ি থেকে বের করে …

error: Content is protected !!