সিলেটে বন্যার্তদের পাশে কেরানীগঞ্জের মানবিক ডা: হাবিবুর রহমান ও তার টিম

দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের ভয়াবহ বন্যায় হঠাৎ করেই পানি বন্দী হয়ে পড়েছে সিলেট ও সুনামগঞ্জ জেলার লাখ লাখ মানুষ। দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে ইতিমধ্যই অসহায় বন্যার্তদের পাশে দাড়ানোর চেষ্টা করছেন বিভিন্ন ব্যাক্তিবর্গ ও সামাজিক সংগঠন। তারই ধারাবাহিকতায় কেরানীগঞ্জ থেকে অসহায় বন্যার্তদের পাশে দাড়িয়েছেন কেরানীগঞ্জের মানবিক ডাক্তার হাবিবুর রহমান ও একটি টিম।

জানা যায়, ডাক্তার হাবিবুর রহমান ও তার নেতৃত্বে ২০ সদস্যের একটি দল সিলেট ও সুনমাগঞ্জের বেশ কয়েকটি এলাকায় বন্যার্তদের জরুরী ত্রান সহায়তা ও চিকিৎসা সহায়তা দেয়ার জন্য গত ২০ জুন সিলেট ও সুনামগঞ্জের উদ্দ্যেশে কেরানীগঞ্জ থেকে রওনা দেন। প্রথম দিনে তারা সুনামগঞ্জের ছাতকে আড়াইশো পরিবারকে জরুরী খাদ্য সহায়তা ও চিকিৎসা সেবা দিয়েছেন।

ডাক্তার হাবিবুর রহমান, ইন্জিনিয়ার জহির আরিফ, সায়মন চৌধুরী,রিয়াজ আহাম্মেদ, সহিদুল ইসলাম রাজু,সামির ইফতেকার সানি সহ ২০ জনের একটি টিম  ৪ ভাগে ভাগ হয়ে সিলেট ও সুনামগঞ্জের বন্যার্তদের সহায়তায় কাজ করছে। তাদের এ ত্রান বিতরিন কার্যক্রম আগামী ২৩ জুন পর্যন্ত বেশ কয়েকটি এলাকায় ধারাবাহিক ভাবে চলবে। জীবনের ঝুকি নিয়ে সঙ্কটাপন্ন মানুষের পাশে কেরানীগঞ্জের সামাজিক সংগঠনগুলোর দাড়ানোর বিষয়টি সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছে।

সিলেট ও সুনামগঞ্জের মানুষ বন্যার পানিতে দিশেহারা হয়ে পড়েছে । বন্যার ভয়াবহতা বাড়তে থাকায় গত কয়েকদিন থেকে বিদ্যুৎ, গ্যাসসহ যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন এখানকার মানুষ।  সারাদেশ থেকে কার্যত বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে জেলা দুটি এমন পরিস্থিতিতেও গলাপানি অতিক্রম করে সেখানে খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন  কেরানীগঞ্জের তরুন সমাজসেবকরা । বিষাক্ত সাপ, বৈদ্যুতিক ঝুকিসহ নানা ঝুকি নিয়ে পানি পেরিয়ে বানভাসি মানুষগুলোর কাছে খাবার হাতে দুয়ারে দুয়ারে পৌঁছে গেছে কেরানীগঞ্জের তরুণরা। সেই সাথে নিশ্চিত করছে চিকিৎসা সেবাও।

 

ত্রান বিতরন কার্যক্রম দলটির সদস্য কেরানীগঞ্জ পিয়ারলেস ইয়থ ক্লাবের সভাপতি ও কেরানীগঞ্জের তরুন সমাজসেবক সায়মন চৌধুরীর সাথে কথা হলে তিনি জানান, বন্যার পরিস্থিতি টিভিটে, খবরের পত্রিকায় ও সোস্যাল মিডিয়ায় আমরা যা দেখছি বাস্তবে তার চেয়ে আরো ভয়াবহ। এখানে এমন অনেক পরিবার আছে যারা গত ২ দিন ধরে কিছু খায় নি। এখন পানি কিছুটা কমতে শুরু করেছে। আর সেই সাথে ডায়রিয়ার প্রকোপ খুব বেড়েছে। অনেকে ত্রান সহায়তা পেলেও প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা পাচ্ছে না কেউ। আমরা কেরানীগঞ্জ থেকে ডা: হাবিবুর রহমান ভায়ের নেতৃত্বে ২০ সদস্যের একটি দল এখানে এসেছি অসহায়দের পাশে দাড়ানোর জন্য। প্রথম দিনে আমরা ছাতকে আড়াইশো পরিবারকে ত্রান ও জরুরী চিকিৎসা সেবা দিয়েছি। আজকে তিনশর বেশি পরিবারকে সহায়তা দিবো ইন সা আল্লাহ। আমদের ত্রান পরিচালনা কার্যক্রম আগামী কালকেও চলবে।

রিয়াজ আহমেদের সাথে কথা হলে তিনি জানান, আমরা ডা: হাবিব ভাই ও ইঞ্জিনিয়ার জহির ভাইয়ের নেতৃত্বে এর আগেও বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে অসহায়দের পাশে দাড়িয়েছি। এছাড়া কেরানীগঞ্জের বিভিন্ন সামাজিক সমস্যা ও সামাজিক উন্নয়নে আমরা সব সময় কাজ করছি। সিলেটের এই খারাপ সময়ে আমরা আমাদের সাধ্য মতো পাশে দাড়িয়েছি। কেরানীগঞ্জের অনেক ব্যক্তিবর্গ আমাদের সিলেটবাসীর পাশে দাড়ানোর জন্য আমাদের অর্থ পাঠিয়ে, বিভিন্ন ভাবে সহায়তা করেছেন। আমরা সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই।  আমরা বন্যার্ত পরিবারগুলোকে  ঔষদ, চিরা, গুর, বিস্কিট, পাউরুটি , মোমবাতি, পানি বিশুদ্ধ করন ট্যাবলেট, খবার পানি, সেনেটারি নেপকিন দিয়ে সহায়তা করছি। এছাড়া ডাক্তার হাবিব ভাই গত কাল আরোইশোর বেশি লোককে চিকিৎসা সেবা দিয়েছে। তিনি নিজে অসুস্থ হয়েও আজকে ৪০০+ লোক কে চিকিৎসা সেবা দিবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ত্রান পাওয়া গেলেও অনেকে প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা পাচ্ছে না। এটা খুব জরুরী একটা বিষয়।

 

কেরানীগঞ্জের অন্যতম সমাজ সেবক ও মানবিক ডাক্তার হাবিবুর রহমানের  জানান, দেশের এই ক্রান্তি লগ্নে সবারই সাধ্য অনুযায়ী বানভাসি মানুষের পাশে দাঁড়ানো উচিত। বিপদে মানুষের পাশে মানুষ দাড়াবে এটাই আমাদের ধর্ম হওয়া উচিত।

 

 

 

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে [sharethis-inline-buttons]

Check Also

মরহুম হাজ্বী খালেক মন্ডল স্মৃতি ফুটবল টুর্নামেন্ট সিজন ২ অনুষ্ঠিত

মরহুম হাজ্বী খালেক মন্ডল স্মৃতি ফুটবল টুর্নামেন্ট ২০২২ সিজন ২ ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ …

error: Content is protected !!