Breaking News
Home / প্রচ্ছদ / ফিরে দেখা ২০১৯ এর আলোচিত যতো ঘটনা
আলোচিত

ফিরে দেখা ২০১৯ এর আলোচিত যতো ঘটনা

ওয়ালিদ হোসেন ফাহিম : সময় এর সাথে সাথে জাতির উন্নয়ন হচ্ছে ঠিকই জাতির উন্নয়নে বাংলাদেশের ও ব্যতিক্রম নয়। দেশের নানাবিধ কর্মকাণ্ড নিয়ে বছরজুড়েই সব শ্রেণির মানুষের আলোচিত এর মধ্যে আলোচনা-সমালোচনা,ন্যায়-অন্যায় বিচার-বিশ্লেষণ, ছিল তুঙ্গে।

১-অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ
২০১৯ সালে বাংলাদেশের স্বল্পোন্নত দেশ (এলডিসি) থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তোরণ ঘটেছে। জাতিসংঘের অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়ন নীতি সংক্রান্ত কমিটি (সিডিপি) গত ১৫ মার্চ এলডিসি থেকে বাংলাদেশের উত্তরণের যোগ্যতা অর্জনের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়। এলডিসি ক্যাটাগরি থেকে উত্তরণের জন্য মাথাপিছু আয়, মানব সম্পদ সূচক এবং অর্থনৈতিক ভঙ্গুরতা সূচক এ তিনটি সূচকের যে কোন দুটি অর্জনের শর্ত থাকলেও বাংলাদেশ তিনটি সূচকের মানদন্ডেই উন্নীত হয়েছে।
যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ থেকে আজকের এই উত্তরণ  যেখানে রয়েছে এক বন্ধুর পথ পাড়ি দেওয়ার ইতিহাস’ সরকারের রুপকল্প ২০২১ বাস্তবায়নের এটি একটি বড় অর্জন। এটি সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশের সাহসী এবং অগ্রগতিশীল উন্নয়ন কৌশল গ্রহণের ফলে যা সামগ্রিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি, কাঠামোগত রূপান্তর ও উল্লেখযোগ্য সামাজিক অগ্রগতির মাধ্যমে বাংলাদেশকে দ্রুত উন্নয়নের পথে নিয়ে এসেছে।
বাংলাদেশ ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধ দেশে পরিণত হওয়ার লক্ষ্য নির্ধারণ করে সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।
২।অগ্নি কান্ডের ঝড়
বছর  শুরু থেকেই যেনো চারপাশে ছিল  আগুনের  একটি সারি গান। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালোবাসা  দিবসে রাজধানীর  সোহরাওয়ার্দী  হাসপাতালে  আগুন লাগে। ঠিক সময় মত ফায়ার সার্ভিসের সহযোগিতা এর ফলে তেমন কোন বড় ধরনের ঘটনা ঘটে  নি,এরপর পুরাতন ঢাকা বাসিদের জন্য নেমে আসে এক কালো রাত, অবৈধভাবে  গড়ে উঠা কল- কারখানার ফলে ২০ ফেব্রুয়ারি রাত এক ভয়াবহ  অগ্নি কান্ড দৃশ্য  দেখা যায় চকবাজার  চুড়িহাট্রা  মোড়ে যার ফলে প্রাণ হারান প্রায় ৭০ জন এটিই ছিল এই বছরের সবচেয়ে বড় ঘটনা, এর পর খন্ড খন্ড ভাবে দেশের বিভিন্ন স্থানে অগ্নি কান্ডে ক্ষয় ক্ষতি  হয় কোটি কোটি  টাকার সম্পদ এদের মধ্যে কিছু উল্লেখ  স্থান  সমূহ মিরপুর, গাজীপুর,ইসলামপুর,রাজধানী মার্কেট,কেরানীগঞ্জ। যথাযথ  পরিচালনা অভাব ও অবৈধভাবে  গড়ে উঠা কলকারখানা কারনেই  এই বছর আমাদের  দেশে এত অগ্নি কান্ড আঘাত এনেছে বিষয় টি নিশ্চিত হয়।
৩-গাছের ঢালই ডেকে আনলো মৃত্যু
বই মেলার থেকে রিকশায় করে বাড়ি ফেরার পথে রাস্তার  পাসে থাকা একটি  বিশাল গাছের ঢাল ঙেজ্ঞে পড়ে তিন জন ঘুরতে আসা বান্ধবীর  উপর একজন এর মৃত্যু  সাথে সাথে হলেও বাকি  ২ জন হাসপাতালে  মৃত্যুর  সাথে  লড়াই করে হার মানতে হয়,এতে প্রায় আহত ৬-৭ জন
 ঘটনা  স্থল থাকা লোকজনদের দাবি সরকারি দায়িত্ব পাওয়া কর্মচারিদের দায়িত্ব অবহেলার  কারণে এই ধরনের ঘটনা ঘটেছে আগামী  তে যেন এই ধরনের কোন ঘটনা না ঘটে সে বিষয় নজর দেওয়ার  কথা জানান তারা।
৪- ডেঙ্গু  র সর্বনাশ
এডিস মশা ও ডেঙ্গু  এই দুটির শব্দের সাথে পুরো বাংলাদেশের জাতি এবার লড়াই করে যাচ্ছে, ডেঙ্গু রোগে  এই পর্যন্ত সম্ভবাবত দেড় শতাধিকের বেশী রোগী  মারা যান।কিন্তু শাস্থ্যমন্ত্রী মতে এই পর্যন্ত ১৪ জন মারা যায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত  হয়ে।  এদের মধ্য ১২ জন ঢাকা মেডিকেল ও ২জন পি জি হাসপাতালে  মারা যান,কিন্তু সারাদেশের হিসাবে এক লক্ষের ও বেশি মানুষ  এই রোগে আক্রান্ত হন।
৫- দ্রব্য মূল্য বৃদ্ধি পেঁয়াজ
বছর অর্ধংশের পর ভারত থেকে আমদানি  করা পিয়াজ বন্ধের ফলে বেড়ে যায় দেশী পেয়াজের চাহিদা ও দাম, ৪০ টাকা কেজি থেকে শুরু করে দামের শেষ স্থান দাড়ায় ৩০০ টাকার ও বেশি,যার ফলে খেটে খাওয়া অনেক সাধারণ  মানুষের জন্য নিষিদ্ধ  হয়ে পরে দেশি পিয়াজ,সাধারণ  মানুষের  চাহিদা মেটানোর জন্য আমদানি  করা হয় পাকিস্তানি, মিশর,চায়না এর পিয়াজ, এরই মধ্যে এক গুজবের শিকার  হন সাধারণত  জনগন যার নাম লবন, লবনের দাম বৃদ্ধি  না পেলে ও কোথাও কোথাও  গুজব কে কাজে লগিয়ে হাকানো হয় বেশি মূল্য।
৬-বিশ্ব সেরা অলরাউন্ডার সাকিব নিষিদ্ধ
বিশ্বের সবচেয়ে অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের একমাত্র  প্রাণ ও ভরযোগ্য খেলোয়াড়  সাকিব আল হাসান নিষিদ্ধ হন তার সামন্য  গাফলতির জন্য, ক্রিকেট ম্যাচ ফিক্সিংয়ের এর জন্য বার বার কিছু লোক তার সাথে যোগাযোগ করলে ও সে তা বিসিবি  কে জানায় নি পরে এই অপরাধ  সিকার করায় তাকে ১বছর এর জন্য সব ধরনের টুর্নামেন্ট থেকে নিষিদ্ধ  করা হয় যার ফলে সে ছিটকে পরেন বিপিএল,আইপিএল ও টি-টোয়েন্টি  বিশ্ব কাপ থেকে। যার ফলে ২৯অক্টোবর ২০২০ এর আগে সে কোন ধরনের  ক্রিকেট  ম্যাচ খেলতে পারবে না।
৭- ডাকসু নির্বাচন
এ বছরের অন্যতম আলোচনার বিষয় ছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্রসংসদ (ডাকসু) নির্বাচন। ২৮ বছর পর এই নির্বাচন ঘিরে ছিল নানা আলোচনা। বছরের শেষ দিকেও এ আলোচনা অব্যাহত রয়েছে। দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর ভোট গ্রহণ শেষে ভিপি নির্বাচিত হন কোটা সংস্কার আন্দোলনে নেতৃত্ব দেওয়া সংগঠন বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের প্রার্থী নুরুল হক নুর। কিন্তু নির্বাচনের পর থেকে বছরের শেষ পর্যন্ত বেশ কয়েকবার হামলার শিকার হয়েছেন তিনি। বছরের শেষে আলোচনার কেন্দ্রে ছিলেন তিনি। তার ওপর হামলার ঘটনায় সারা দেশের শিক্ষাঙ্গনেও বিস্তার করেছে অস্থিরতা।
৮-বুয়েট ছাএ আবরার হত্যা
বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) অস্থিরতা বছরের অন্যতম আলোচিত বিষয় ছিল। শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে গত ৬ অক্টোবর বুয়েটের শেরেবাংলা হলে পিটিয়ে হত্যা করেন ছাত্রলীগের কিছু নেতা-কর্মী। শিক্ষার্থীরা এ ঘটনার পর থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে বিভিন্ন দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন। দেশ-বিদেশের গণমাধ্যমে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয় বুয়েট ও আবরার। শিক্ষার্থীদের দাবির মুখে ক্যাম্পাসে নিষিদ্ধ হয় ছাত্র-শিক্ষক রাজনীতি। বহিষ্কার করা হয় আবরার হত্যায় জড়িত ২৬ শিক্ষার্থীকে। র‌্যাগিংয়ের দায়ে বহিষ্কারসহ বিভিন্ন মেয়াদে শাস্তি পান ৩০ জন। ভবিষ্যতে যাতে বুয়েটের কেউ কোনো রাজনীতিতে জড়াতে না পারেন সে ব্যাপারে বিধিমালা জারি করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। সব দাবি আদায় শেষে দীর্ঘ ২ মাস ১২ দিন বন্ধ থাকার পর ২৮ ডিসেম্বর টার্ম ফাইনালে বসার সিদ্ধান্ত নেন বুয়েটের শিক্ষার্থীরা।
৯- ক্যাসিনোর জোয়ার
ক্যাসিনো মানেই টাকা ওড়ানোর জায়গা। বিশ্বজুড়ে রয়েছে এমন অসংখ্য ক্যাসিনো যেখানে জুয়ার নেশায় মেতে থাকেন জুয়াড়িরা। পৃথিবীর বহু দেশেই চলে জুয়া খেলার রমরমা ব্যবসা পিছিয়ে  নেই  বাংলাদেশও। আমেরিকা, রাশিয়া, অস্ট্রেলিয়া, চীন, ভারত, বাংলাদেশ,নেপালসহ অসংখ্য দেশে গড়ে উঠেছে টাকা ওড়ানোর জায়গা। অনেক ধনাঢ্য ব্যক্তি খেলার ছলে মনোরঞ্জনের জন্য এসব ক্যাসিনোতে আসেন।
বাংলাদেশে বিভিন্ন ক্লাবে এবং ক্যাসিনোতে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ জুয়া চলার ক্ষেত্রে পুলিশ প্রশাসনের কারও কোন যোগসাজশ ছিল কিনা, সরকার তা তদন্ত করবে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্ভরযোগ্য একটি সূত্র এই তথ্য জানিয়েছে।
১০-পদ্মা সেতু
অনেক জল্পনা কল্পনা পর নিজ দেশের তাগিদে নির্মান বাস্তবায়ন হচ্ছে পদ্মা সেতু। বাংলাদেশের পদ্মা নদীর উপর নির্মাণাধীন একটি বহুমুখী সড়ক ও রেল সেতু। এর মাধ্যমে লৌহজং , মুন্সিগঞ্জের সাথে
শরিয়তপুর ও মাদারীপুর যুক্ত হবে, ফলে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিম অংশের সাথে উত্তর-পূর্ব অংশের সংযোগ ঘটবে। বাংলাদেশের মত উন্নয়নশীল দেশের জন্য পদ্মা সেতু হতে যাচ্ছে এর ইতিহাসের একটি সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জিং নির্মাণ প্রকল্প।
১১- মেট্রোরেল প্রকল্প
যুগের সাথে তাল মিলিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে  আমাদের দেশ,ঢাকার ভেতর যান যোট কমানোর  জন্য প্রায়  দীর্ঘ দিন ধরেই নানা পরিকল্পনা করা হচ্ছিলো কিন্তু  অবশেষে  সব জল্পনা কল্পনা ধূলো দিয়ে রাজধানীর মধ্যে  তৈরি হচ্ছে মেট্রোরেল পথ।শুরু হয়ে গেছে মেট্রোরেল
প্রকল্পের দ্বিতীয় অংশের কাজ। এতে বাসের মতো গণপরিবহনের চলার পথ বদলে দেওয়া হয়েছে। রাস্তা সংকুচিত হয়ে বিপত্তিতে পড়তে হচ্ছে যাত্রী ও চালকদের। উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত ৩৭৭টি পিলারের ওপর ৩৭৬টি স্প্যান বসে বিস্তৃত হবে ২০ কিলোমিটারের মেট্রোরেল প্রকল্প। এর মধ্য প্রথম ভাগে প্রায় ১২ কিলোমিটার অংশে রয়েছে আগারগাঁও পর্যন্ত। প্রকল্পের এই অংশের কাজ অনেকটাই এগিয়েছে। ২০২০ সালের মধ্যে উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত মেট্রোরেল চালু করতে পারবেন বলে আশা প্রকল্পসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের।
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

About নিউজ ঢাকা ২৪

Check Also

কেরানীগঞ্জে র‍্যাবের হাতে মুক্তিপণ চক্রের ৪ সদস্য গ্রেফতার

ঢাকা জেলার কেরানীগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জ থানাধীন কদমতলী ও মুসলিমনগর এলাকায় অভিযান পরিচালনা করিয়া মুক্তিপান ...

বিএনপি–সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থীর ওপর হামলা অভিযোগ

ওয়ালীদ হোসেন ফাহিম ঃ নির্বাচন কে সামনে রেখে প্রচারনায় নেমে বিপক্ষ দলের লোকজন ধারা হামলার ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *