কেরানীগঞ্জে ভুয়া লটারীর নামে জুয়া ; লুটে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা

ঢাকার কেরানীগঞ্জে ভুয়া লটারীর নামে জুয়া পরিচালনা করে সাধারন  মানুষের লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে একটি প্রভাবশালী চক্র। কেরানীগঞ্জের কালিগঞ্জ ,চুনকুটিয়া,কোনাখোলা,আমবাগিচা, জিলা পরিষদ রোড, কদমতলী সহ আশ-পাশের এলাকার অলি গলিতে প্রকাশ্যে বিক্রি হচ্ছে লাকি কুপন।  প্রতিদিন সকাল ১০ টা হতে রাত ৯টা পর্যন্ত বিক্রি করা হয় এই কুপন এবং রাত ১০.৩০ এ চুনকুটিয়া নুরু চেয়ারম্যান বাড়ি সংলগ্ন মাঠে অনুষ্ঠিত হয় র‍্যাফেল ড্র। প্রতিদিন ১৫ টি ইজি বাইকে মাইক লাগিয়ে প্রচারনা করে ২০ টাকা মূল্যের  নিউ রুপালি র‍্যাফেল ড্র নামে টিকেট বিক্রি করা হয়। প্রতিটি ইজি বাইকে প্রতিদিন প্রায় ১ হাজারের বেশি টিকেট বিক্রি হয় বলে জানা যায়। সেই হিসেবে প্রতিদিন প্রায় ৩ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে চক্র টি। অনুসন্ধানে দেখা গেছে আকর্ষনীয় বিজ্ঞাপনে দামী পুরস্কারের প্রলোভন দেখানো হলেও বাস্তবে এগুলোর কিছুই দেওয়া হয় না। লটারীর ফাদে পরে সর্বসান্ত হচ্ছে এলাকার বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ।

সরেজমিনে, কেরানীগঞ্জের আগানগর ও শুভাঢ্যা ইউনিয়নে গিয়ে দেখা যায় একাধিক ইজি বাইকে মাইকিং করে বিক্রি করা হচ্ছে লাকি কুপনের টিকিট। এক টিকেট বিক্রেতার সাথে কথা বলে জানা যায়, গত ১০/১২ থেকে চলছে এই টিকেট বিক্রি। শীত কালিন আনন্দ মেলা উপলক্ষ্যে চুনকুটিয়া মাঠে শুরু হয়েছে এই লটারী এবং চলবে আগামী ২৮ রমজান পর্যন্ত। প্রতিদিন এক একটি গাড়িতে ১ হাজারের বেশি টিকেট বিক্রি হয় বলে আরো জানায় এই টিকেট বিক্রেতা।

রাতের বেলা ড্র অনুষ্ঠিত স্থানে গিয়ে দেখা যায়, টিকেট ড্র এর আগ মুহুর্তে সেখানে চলে হাউজি, মিনি ক্যাসিনো সহ জুয়া খেলার FhC বিভিন্ন আসর। প্রতিটি বোর্ডের সামনে দেখা মিলে উঠতি বয়সের কিশোরদের। টিকেট বিক্রির সময় বিভিন্ন আকর্ষনীয় পুরষ্কারের কথা বলা হলেও বাস্তবে তার দেখা মিলে না।

রিক্সা চালক মো: সালাম জানান, আমি ভাড়ায় অটোরিক্সা চালাই আজকে প্রথম পুরষ্কার ছিলো একটি অটোরিক্সা । সেই আশায় ১০ টি কূপন ক্রয় করি। কিন্তু অটো রিক্সা পাওয়া তো দূরে থাক। একটা পুরষ্কার ও পাই নি। আর ড্র এর শেষ পর্যন্ত ছিলাম কাউকেই দেখলাম টা অটোরিক্সাটি পেতে।

সালামের হাতে থাকা লাকি কূপন টি সংগ্রহ করে অনুসন্ধানে দেখা যায়, এই কূপন গুলা মূলত অনেক আগের অন্য একটি মেলার পরিত্যক্ত কূপন। ঐ মেলার কুপনগুলো  একটি ভাংগারীর কাগজের দোকানে বিক্রি করে দেয়। সেখান থেকে তারা সংগ্রহ করে এখানে এনে বিক্রি করছে। এবং এই টিকেটগুলো মূলত ড্রতে উঠানো হচ্ছে না।

এভাবে প্রতারনা করা হচ্ছে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষের সাথে। কিন্তু যারাই এসব কূপন নিচ্ছেন কেউই জানেনা এই কূপনের আড়ালে তাদের সাথে প্রতারণা মাধ্যমে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে প্রতারক চক্রটি।

তবে প্রকাশ্যে মাইকিং করে এই অবৈধ লটারীর টিকেট প্রশাসনের নাকের ডগায় বিক্রি হলেও ব্যবস্থা নিচ্ছেন না কেউ।

অনুসন্ধানে আরো জানা যায়, শুভাঢ্যা ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক আলমাসসহ স্থানীয় কয়েকজন নেতার সেল্টারে চলছে এই অবৈধ মিনি কেসিনো, জুয়া ও লটারীর নামে প্রতারনা। এলাকার সচেতন মহল এই ক্যাসিনো ও জুয়ার ব্যাপারে প্রতিবাদ করতে চাইলেও এইসব  নেতাদের দাপটের জন্য কেও কিছু বলতে পারে না।

 

এই বিষয়ে জানতে চাইলে যুবলীগ নেতা আলমাস জানান, মেলা চালায় আবু নামের এক ব্যাক্তি, সেখান থেকে আমাকে প্রতিদিন এলাকার হিসাবে ১৫০০/২০০০ টাকা আমাকে দেয় এই পর্যন্তই। শুধু আমাকে না আওয়ামীলীগ, সেচ্ছাসেবকলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, শ্রমিকলীগের অনেক নেতাই এখান থেকে প্রতিদিন চাদা নেয়। কারা কারা নিচ্ছে আসুন, আমি সবার নাম বলে দিচ্ছি। মেলা বন্ধ করে দিলে আমার কোন লাভ লস নাই, আপনারা বন্ধ করে দিন, আমি আর যাবো না।

মেলার জন্য কোন প্রকার অনুমতি নেওয়া হয়েছে কিনা জানার জন্য মেলা পরিচালক আবুর মুঠোফোনে একাধিক বার ফোন দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেন নি। মেলা পরিচালনার দায়িত্বে থাকা রানা ও কালামের সাথে কথা হলে তারা জানান, মেলার জন্য কোন অনুমোদন লাগে না। পুলিশ,র‍্যাব, প্রশাসনকে ম্যানেজ করেই মেলা চালানো হচ্ছে। রানা আরো জানান, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি, সেক্রেটারী এই মেলা পরিচালনার সাথে জড়িত।

 

শুভাঢ্যা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মো: এমারত জানান, মেলা চলছে ৩ নং ওয়ার্ডে আর আমি থাকি ৪ নং ওয়ার্ডে। আমি বা আমার সেক্রেটারি এই মেলার সাথে জড়িত না। যদি কেও প্রমান দিতে পারে তাহলে আমাদের বিরুদ্ধে যে ব্যবস্থা নেয়া হবে মেনে নিবো। যুবলীগের কেও জড়িত থাকলে তার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

এ বিষয়ে কেরানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফয়সল বিন করিম জানান, বিষয়টা আমি এখন ই শুনলাম। আমি দ্রুতই যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করছি । #

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে [sharethis-inline-buttons]

Check Also

ধলেশ্বরীতে অবৈধ ড্রেজার বসিয়ে চলছে বালু আনলোডিং; হুমকির মুখে তীর রক্ষায় ব্যবহৃত জিও ব্যাগ

কোনো ধরনের অনুমতি ছাড়াই কেরানীগঞ্জে ধলেশ্বরী তীরে প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ড্রেজার মেশিন দিয়ে আশে পাশের …

error: Content is protected !!